রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » মোদির বাংলাদেশ সফর নিয়ে উস্কানি দিচ্ছে হেফাজত!



মোদির বাংলাদেশ সফর নিয়ে উস্কানি দিচ্ছে হেফাজত!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
16.03.2021

নিউজ ডেস্ক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে সরকার। যা আগামী ১৭ থেকে ২৬ মার্চ তারিখ পর্যন্ত জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে অনুষ্ঠিত হবে। এই সময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ দক্ষিণ এশিয়ার পাঁচ দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা রাজধানী ঢাকায় আসবেন। তাদেরকে স্বাগত জানাতে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছে। কিন্তু মোদির বাংলাদেশ যাত্রা নিয়ে জলঘোলা করছে হেফাজত।

দায়িত্বশীল সূত্রের তথ্যমতে, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী বা মুজিববর্ষ উদযাপন এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আগামী ২৬ ও ২৭ মার্চ দুদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বাংলাদেশে আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও দেশটির বিভিন্ন দফতরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা তার সফরসঙ্গী হিসেবে যোগ দেবেন।

সফরের প্রথম দিন (২৬ মার্চ) রাষ্ট্রীয় অতিথি হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে গার্ড অব অনার প্রদান করা হবে। এরপর তিনি সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করবেন। একই দিন বিকেলে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে ‘গেস্ট অব অনার’ হিসেবে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য দেবেন। পরে সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যৌথভাবে তিনি বঙ্গবন্ধু-বাপু ডিজিটাল প্রদর্শনী পরিদর্শন করবেন।

সফরের দ্বিতীয় দিন (২৭ মার্চ) সকালে তিনি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ পরিদর্শন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এছাড়া তিনি সাতক্ষীরা ও গোপালগঞ্জে দুটি মন্দির পরিদর্শন করে স্থানীয় জনগণের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত পরিসরে মতবিনিময়ের আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি ওইদিন বিকেলে দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে একান্ত বৈঠক ছাড়াও প্রতিনিধি পর্যায়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে দুই দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

কিন্তু বিষয়টি নিয়ে হেফাজতের পক্ষ থেকে নানা রকম অপব্যাখ্যা-অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। জলঘোলা করার চেষ্টায় তাদের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ভারতের মুসলমানদের ওপরে নির্যাতনের বিষয়ে ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না। এছাড়া তার এই সফরের কোন যৌক্তিকতা নেই বলেও নানা রকম উস্কানিমূলক মন্তব্য করা হচ্ছে।

তবে এ ধরনের উস্কানিতে শঙ্কা নেই জানিয়ে সরকার বলছে, কোনোরূপ শঙ্কা নেই। এ ধরনের অপতৎপরতাকে সরকার কঠোরভাবে মোকাবিলা করবে। এ বিষয়ে দেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ইতোপূর্বে পাঠ্যপুস্তক ও ভাস্কর্য ইস্যুতে সরকারের বিরুদ্ধে অদৃশ্য যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল হেফাজত। এখন নরেন্দ্র মোদির ঢাকা সফর নিয়েও তারা বাড়াবাড়ি করছে। তবে সরকারের পাশাপাশি দেশবাসী সতর্ক থাকলে যেকোনো মূল্যে তাদের এই অপতৎপরতা রুখে দেয়া যাবে। রুখে দেয়া যাবে সব ষড়যন্ত্রকেও।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি