বৃহস্পতিবার ১৫ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » বিএনপি নেতাদের অসুস্থতায় তারেকের ‘মাথায় হাত’, গাত্রদাহ ফখরুলের!



বিএনপি নেতাদের অসুস্থতায় তারেকের ‘মাথায় হাত’, গাত্রদাহ ফখরুলের!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
18.03.2021

দলের একাধিক নেতাকর্মী অসুস্থ। উদ্বেগভরা কণ্ঠে লন্ডন থেকে ‘আস্থাভাজন’ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের তাই বারবার ফোন দিচ্ছেন তারেক রহমান। নিচ্ছেন সর্বশেষ খোঁজ। বিশেষ করে দলীয় সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর শারীরিক অবস্থা ও চিকিৎসার খবরাখবর নিতে তিনি পাগলপ্রায় হয়ে পড়েছেন। কারণ, রিজভীই সেই ব্যক্তি যিনি তার সকল কাজ দেখভাল করেন। বিষয়টি নিয়ে রীতিমত গাত্রদাহ শুরু হয়েছে ফখরুলের। তার ভাষ্য, রিজভীর প্রতি এতো কিসের দরদ! তাহলে কি বাকি অসুস্থ নেতৃবৃন্দ তারেকের কাছে মূল্যহীন!

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী ও বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। কিন্তু তাদের ভেতর থেকে রিজভীর অসুস্থতার খবরেই যেন তারেক রহমানের ‘মাথায় হাত’। চিন্তায় তার ঘুম হচ্ছে না। কারণ দেশে তার আয়ের সার্বিক দেখভাল তিনিই করতেন। নির্ভরতার জায়গা থেকে তাই তারেক যারপরনাই বিচলিত। কিন্তু বিষয়টি মির্জা ফখরুলসহ অন্যান্য নেতাকর্মীদের কাছে মোটেও ভালো লাগছে না।

তারা বলছেন, সবাইকে এক চোখে দেখা উচিত। ব্যক্তি স্বার্থের জন্য দলীয় স্বার্থকে উপেক্ষা করা উচিত নয়। তাছাড়া অসুস্থ সবাই-ই বিএনপির জন্য অনেক কিছু করেছেন। তাই রিজভীকে আলাদা চোখে দেখাটা তারেক রহমানের মোটেই উচিত হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান বাংলা নিউজ ব্যাংককে জানান, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান গত ১০ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হন। তিনি বর্তমানে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালের কোভিড আইসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে। অপরদিকে, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আলম চৌধুরী সিএমএইচ-এ কোভিড আইসিইউতে চিকিৎসাধীন। বুধবার (১৭ মার্চ) সন্ধ্যায় গুরুতর হার্টঅ্যাটাকের পর তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছে। এর আগে গত ১০ মার্চ জ্বর ও সর্দি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন রুহুল আলম চৌধুরী। এরপর তার করোনা ধরা পড়ে। অন্যদিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদেরও করোনা পজিটিভ। বর্তমানে তিনি রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সবার কমবেশি খোঁজ নিলেও ‘একান্ত আস্থাভাজন’ হওয়ায় তারেক রহমান রিজভীর খবর বেশি নিচ্ছেন, এমন খবরও পেয়েছি।

শায়রুল কবির আরও বলেন, উক্ত নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি অন্য অসুস্থতায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালের সিসিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত রয়েছে। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবীব-উন নবী খানও সোহেল রাজধানীর হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদেরও মাঝে মধ্যে খোঁজ নিচ্ছেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

লন্ডনের কিংস্টনভিত্তিক সূত্রের দাবি, দলের একাধিক দায়িত্বশীল ও গুরুত্বপূর্ণ নেতাকর্মী অসুস্থ হওয়ায় দারুণ মন খারাপ তারেক রহমানের। রীতিমত মাথায় হাত। কিন্তু এই সময় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের ভূমিকা প্রশংসনীয় নয়। তিনি গা ছাড়া ভাবে চলছেন। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অসুস্থ নেতৃবৃন্দের সার্বক্ষণিক খোঁজখবর নেওয়ার পাশাপাশি তদারকি করার ব্যাপারে বললেও ফখরুল তা গুরুত্ব দিচ্ছেন না। তাই তারেক ঠিক করেছেন পরবর্তী দলীয় কাউন্সিলে এর জবাব ফখরুল পাবেন। এবং এটাই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

এটাই বিএনপির আসল চরিত্র উল্লেখ করে দেশের রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, বিএনপির চরিত্র ‘কয়লা ধুলে ময়লা যায় না’র মতো। আর এটাই তাদের আসল চরিত্র। এ কারণে যতই সময় গড়াচ্ছে, ততই তাদের প্রকৃত রূপ জনসম্মুখে প্রকাশ্য হচ্ছে। যেমনটা এখন দলীয় নেতৃবৃন্দের অসুস্থতার বেলায় হচ্ছে। আর দেশবাসী তাদের এই হীন মানসিকতার কথা জানে। জানে বলেই তাদেরকে অনুষ্ঠিত সবগুলো নির্বাচনে বারবার ব্যালট-ইভিএমে পরাজিত করেছে। করবেও অনাগত দিনে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি