মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » নুরের দাবি ‘গুলিবিদ্ধ’, সঙ্গীরা বলছেন ‘সুস্থ’



নুরের দাবি ‘গুলিবিদ্ধ’, সঙ্গীরা বলছেন ‘সুস্থ’


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
25.03.2021

রাজধানীতে মোদিবিরোধী আন্দোলনে সংঘর্ষের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর নিজেকে ‘গুলিবিদ্ধ’ দাবি করলেও সে খবরকে মিথ্যে বলে মন্তব্য করলেন যুব অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক তারেক হোসেন ও ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাবি শাখার সাবেক সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা।

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) দুপুরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে রাজধানীর পল্টন থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে নুরুল হক নুরের ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ। সেই মিছিলে হঠাৎ পেছন থেকে একজন বলে ওঠেন, নুরকে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি বোধ হয় গুলিবিদ্ধ। ব্যস, মুহূর্তেই সংবাদটি নুরের নিয়ন্ত্রণাধীন পেইজ থেকে ছড়িয়ে পড়ে। ভাইরাল হয়ে যায়। কিন্তু তার ২ ঘণ্টা না যেতেই তিনি আবার সেই পেইজ থেকেই লাইভে আসেন। এখন প্রশ্ন হলো, তিনি যদি গুলিবিদ্ধই হন, তবে কিভাবে সুস্থ শরীর নিয়ে এভাবে লাইভে এলেন? আর এসেই বা কেন একটি বিশেষ মহলের এজেন্ডা বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে সরকারের বিরুদ্ধে জনসাধারণকে ক্ষেপিয়ে তুলতে নানা রকম উসকানিমূলক কথা বললেন?

বাংলা নিউজ ব্যাংকের সঙ্গে আলাপনে এ ব্যাপারে যুব অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক তারেক হোসেন বলেন, নুরের কিছুই হয়নি। তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ। নিজেদের ভুল বোঝাবুঝির জন্যই তার পেইজ থেকে এই তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে। বিষয়টি নিয়ে এখন আমরা নিজেরাই বিব্রত।

একই সুরে এই প্রতিবেদককে ঘটনার কথা জানালেন ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাবি শাখার সাবেক সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা। তিনি বলেন, নুরের গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবরটি সঠিক নয়। তিনি সুস্থ-স্বাভাবিক রয়েছেন। আমাদের সঙ্গে ভালোভাবেই কথা বলছেন। ভুলবশত তার পেইজ থেকে ঘটনাটি শেয়ার হয়েছে। যেটা মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। বিষয়টি সত্যিই খুব বিব্রতকর। এখন তাই যে-ই আমাকে ফোন করছেন, আমি তাকেই বলছি নুর ভালো আছেন। তার কিছুই হয়নি।

এ বিষয়ে দেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১০ দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানমালা ঘোষণা করেছে সরকার। ১৭ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠান চলবে ২৬ মার্চ পর্যন্ত। এতে যোগ দিতে ২৬ মার্চ দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বাংলাদেশে আসছেন বন্ধুপ্রতীম দেশ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তার সফরসূচি ঘোষণার পর থেকেই স্বাধীনতাবিরোধী একটি চক্র সক্রিয় হয়ে উঠেছে তার সফর বানচালের। ঢাকাস্থ পাকিস্তানি দূতাবাসের অর্থায়নে হেফাজতের সঙ্গে সেই কাজটি করছে নুরুল হক নুর গংরা। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) এর ঘটনাও সেই ষড়যন্ত্রের অংশ। এ কারণে মোদি বিরোধী আন্দোলনকে আরও চাঙ্গা করতে নুর নিজেকে ‘গুলিবিদ্ধ’ দাবি করে। কিন্তু পরেক্ষণেই বিষয়টি ফাঁস হয়ে যায় তার সঙ্গীদের মন্তব্যে।

রাজনৈতিক বিজ্ঞজনরা আরও বলছেন, নুর হলো গিরগিটির মতো। ক্ষণে ক্ষণে রং বদলায়। তাই তিনি স্বার্থ হাসিলের আশায় বিশেষ মহলের ‘পেইড এজেন্ট’ হয়ে তিনি এসব কাজ করছেন। তার ব্যাপারে সরকারসহ আমাদের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে যাতে, কোন ভাবেই তিনি তার অসৎ উদ্দেশ্য সাধন না করতে পারেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি