বুধবার ২১ এপ্রিল ২০২১



হঠাৎ জামায়াতের শোডাউন, কিসের আলামত?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
26.03.2021

নিউজ ডেস্ক: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা ঘোষণা করেছে সরকার। ১৭ মার্চ থেকে শুরু হয়ে যা ২৬ মার্চ শেষ হতে যাচ্ছে। এর মধ্যেই স্বাধীনতাবিরোধীদের দল জামায়াত সরকারের অনুকম্পা পেতে নানা পরিকল্পনা নিয়েছে। কারণ, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটে তাদের প্রয়োজন ফুরিয়ে গেছে বলে মন্তব্য একাধিক শীর্ষ নেতার। তাদের ভাষ্য, এখন জামায়াতের প্রয়োজন শেষ হয়েছে মর্মে তাদেরকে একপেশে করে রাখা হয়েছে। কিন্তু বিএনপি নেতৃবৃন্দ হয়তো ভুলে গেছেন, তাদের অর্থায়নের বৃহৎ অংশ জামায়াতই করে। তাই সারাদেশে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে জামায়াতের পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। যশোরের শোডাউনও তার অংশ।

দায়িত্বশীল সূত্রের তথ্যমতে, সুদীর্ঘ অর্ধযুগ যশোরে জামায়াতের দৃশ্যমান কোনো কার্যক্রম দেখা না গেলেও লোকচক্ষুর অন্তরালে তারা সংগঠিত হচ্ছিল। তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার (২৩ মার্চ) তারা স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে যশোর জিলা স্কুলের সামনে থেকে একটি র‌্যালি বের করে।

এর আগে জামায়াতের নেতৃবৃন্দ গত এক সপ্তাহ ধরে চৌগাছার সাবেক এক শিবির নেতার সাহায্যে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে কর্মী-সমর্থকদের এনে যশোরে জড়ো করে এবং পরিকল্পিতভাবে র‌্যালির নামে শোডাউন করে। কিন্তু বিষয়টি জনসম্মুখে আসে চৌগাছার আব্দুর রহমান সোহাগ নামে এক শিবির কর্মী র‌্যালির ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করলে। পরে সেটি সাংবাদিকদের নজরে আসে। বিষয়টি জানতে পরে ওই শিবির কর্মী তাৎক্ষণিকভাবে নিজের আইডি লক করে দেন।

এ বিষয়ে জেলা জামায়াত নেতৃবৃন্দ বলেন, একাত্তরে আমাদের দল কি করেছে কিংবা তার ভূমিকা কি ছিল তা আমাদের জানা নেই। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালনে কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী র‌্যালি করেছি। আলোচনা সভা করারও ইচ্ছে আছে। সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ আমাদেরকে এ কাজে সহায়তা করছে। এটাই ভালো লাগার বিষয়।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, মহান স্বাধীনতার ৫০ বর্ষপূর্তি উদযাপন উপলক্ষে দেশব্যাপী ব্যাপক কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে যশোরে নেতৃবৃন্দ র‌্যালি করেছেন। কিন্তু র‌্যালির নামে শোডাউন করেছেন কিনা সে বিষয়ে আমার কাছে তথ্য নেই।

এ বিষয়ে দেশের রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের ভাষ্য, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী এহেন কাজ নেই যা জামায়াত করেনি। শুধু তাই নয়, স্বাধীনতা যুদ্ধে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদানকেও বিএনপির সঙ্গে তারা অস্বীকার করে আসছে। কিন্তু হঠাৎ বিএনপিতে তাদের গুরুত্ব না থাকায় এবার নতুন পরিকল্পনার ছক এনেছে তারা। সরকারের অনুকম্পা পেতে বিতর্কিত এই দলটি এবার স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালনের কর্মসূচি ঘোষণা নিয়েছে। নিজেদের স্বার্থের জন্য তারা সব করতে পারে এতটুকু মাথায় রেখে সরকারসহ আমাদের সবাইকে সচেতন থাকতে হবে, যাতে তারা কোনভাবেই তাদের অসৎ উদ্দেশ্য সাধন না করতে পারে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি