মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১



তবে কি রিজভীই ঢাকাই বিএনপির নেতা!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
19.04.2021

নিউজ ডেস্ক: মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিএনপির মহাসচিব হলেও কার্যত দলকে নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ। গুঞ্জন রয়েছে, বিএনপির পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ এখন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদের হাতে। তারেক রহমানের বলয়ের নেতা হওয়ায় রিজভী অন্তরাল থেকে দলকে নিয়ন্ত্রণ করছেন, নির্দেশনা দিচ্ছেন এবং যাকে ইচ্ছা তাকে শোকজ ও বহিষ্কার করছেন। ফখরুলকে নিষ্ক্রিয় করতে রিজভী গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন এবং দল পরিচালনার নামে সিন্ডিকেট করে লুটপাটে মত্ত থাকায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বিএনপি। যার ফলে বিএনপির রাজনীতিতে গুঞ্জন চাউর হয়েছে, ফখরুল না রিজভী, কে চালান বিএনপি?

বিএনপি ঘনিষ্ঠ একাধিক গোপন সূত্র বলছে, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, শওকত মাহমুদদের শোকজ করাসহ যাবতীয় কর্মকাণ্ড একহাতে নিয়ন্ত্রণ করছেন রিজভী। আর তাকে প্রচ্ছন্ন সমর্থন দিচ্ছেন লন্ডন থেকে খোদ তারেক রহমান। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের গোপন সমর্থনে বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন রিজভী। যার কারণে নেতা-কর্মীদের বহিষ্কার, সাম্প্রতিক উপজেলা-পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন বাণিজ্যও নিয়ন্ত্রণ করছেন তিনি। বলা হচ্ছে, প্রার্থীদের সাথে দামদর ঠিক করে তারেকের কাছ থেকে চূড়ান্ত মনোনয়ন পাইয়ে দিতেও মধ্যস্বস্তভোগীর ভূমিকা পালন করছেন রিজভী। নিয়মিত প্রেসব্রিফিং, নেতা-কর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা, অনুদান ও চাঁদা আদায়, গোপনে সিনিয়র নেতাদের উপর নজরদারি-সবই করছেন রিজভী।

বিএনপির অভ্যন্তরে গুঞ্জন রয়েছে, মির্জা ফখরুল মহাসচিব হলেও দলে তার কোনো দাম নেই। তার সিদ্ধান্ত কেউ মানতে চায় না। তিনি দাফতরিক আদেশ দিলেও সেটি বাস্তবায়ন করতে অদৃশ্য বাধা দেন রিজভী ও তার অনুসারীরা। মির্জা ফখরুলসহ অন্যান্য খালেদাপন্থী সিনিয়র নেতাদের নানা কৌশলে চাপে রাখছেন রিজভীরা। বিএনপিতে বলাবলি হচ্ছে, সব ক্ষমতার মালিক রিজভী! আর এ কারণেই কোনো নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে এমনকি গঠনতন্ত্রের তোয়াক্কা না করে দলের যাকে ইচ্ছা তাকে চিঠি পাঠিয়ে হেনস্থা করছেন রিজভী। তিনি সিনিয়রদের ও দলের সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নিজের মন মতো দল পরিচালনা করছেন। দলের সিনিয়র নেতা এমনকি দলের মহাসচিব কোনো বিষয়ে কথা বললেও রিজভী আবারও প্রেস কনফারেন্স করে একই বিষয়ে কথা বলেন। যাতে মনে হয়, তিনিই বিএনপির একক নেতা। সব ত্যাগ তার একারই, অন্য কারো কোনো ত্যাগ নেই। এমনকি দলের পদ-পদবিও দিয়ে থাকেন তিনি এবং ওইসব চিঠিতে স্বাক্ষর করেন তিনি। গঠনতন্ত্র মতে যা অবৈধ। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে ভুল বুঝিয়ে তিনি এসব কাজ করে থাকেন। তার এই কাজে সহযোগিতা করে থাকে হাওয়া ভবনের সেই দুর্নীতিবাজ সিন্ডিকেটরা। রিজভীর অত্যাচার মুখ বুঝে সহ্য করে গা বাঁচিয়ে চলছেন ফখরুল। যার কারণে উঠছে নানা প্রশ্ন। মির্জা ফখরুলের চেয়ে বেশি শক্তিশালী রিজভী, এমন মুখরোচক গল্পও ছড়িয়ে পড়েছে বিএনপির রাজনীতিতে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি