মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১



রিমান্ডে ভয়াবহ তথ্য দিলো মামুনুল হক


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
22.04.2021

রিমান্ডে থাকা হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের দেয়া তথ্যে নড়েচড়ে বসেছে গোয়েন্দারা। প্রতিটি চাঞ্চল্যকর তথ্যে আরো গভীর অনুসন্ধান শুরু করা হয়েছে। বিশেষ করে রাষ্ট্র ক্ষমতায় যাওয়া, নিরীহ ছাত্রদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা এবং মদতদাতা হিসেবে বিএনপি জামায়াতের কিছু নেতার নাম বলে দেওয়া এগুলো নিয়ে অনুসন্ধান শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।

গোয়েন্দারা জানান, সম্প্রতি আন্দোলনের নামে তাণ্ডবে হেফাজত নেতারা একটি বিশেষ গোষ্ঠী থেকে বিপুল অংকের অর্থ পেয়েছেন। সেই তথ্যও দিয়েছেন মামুনুল হক। যেখানে হেফাজত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফর উপলক্ষে তাদের কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেয়ার বিবৃতি দিয়েছে। এই বিবৃতি লোক দেখানো কিন্তু সেই অর্থের বিনিময়ে গোপনে তারা বিভিন্ন জেলায় রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ কর্মসূচি রাখার আহবান করে। আর সেই আহবান থেকেই আন্দোলনের নামে তাণ্ডব চালায়।

গোয়েন্দারা বলছেন, মামুনুল হক কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন সেগুলো যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। তার দেয়া তথ্যের মধ্যে রয়েছে,

– সরকারের পতনের পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করেছে হেফাজতে ইসলাম।
– মামুনুল হক নিজেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করার চেষ্টা করেছেন।
– তারা ইসলামি রাষ্ট্র কায়েম করতে চান। আর সেটি কায়েম করতে হলে সরকারের পতন ঘটাতেই হতো।
– হেফাজত মনে করে, এই সরকারের পতন হলে তাদের অনুগ্রহ ছাড়া আর কেউ রাষ্ট্রক্ষমতায় আসতে পারবে না।
– মামুনুল রাজধানীর যেকোনো কর্মসূচিতে সহিংসতার উসকানি দিতেন। গোয়েন্দাদের ভাষ্য, এর বাইরেও কিছু তথ্য তারা পেয়েছেন যা তদন্তের স্বার্থে এখন প্রকাশ করা হচ্ছে না।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের রিসোর্টকাণ্ডের পর মামুনুল হকের ব্যক্তি জীবনও দেশব্যাপী যথেষ্ট আলোচনায় এসেছে। জিজ্ঞাসাবাদে সে বিষয়েও তথ্য বেরিয়ে আসছে। মামুনুল হক গোয়েন্দা পুলিশকে জানিয়েছেন, তার স্ত্রী একটিই। তবে সোনারগাঁওয়ের ওই রিসোর্টে তার সঙ্গে থাকা নারীসহ আরও একজন নারীর সঙ্গেও তিনি ‘মেলামেশা’ করে থাকেন। এ বিষয়ে ওই দুই নারীর সঙ্গেই ‘চুক্তি’ রয়েছে তার।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি