মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » সম্পদের হিস্যা দাবি করায় অবরুদ্ধ শর্মিলা



সম্পদের হিস্যা দাবি করায় অবরুদ্ধ শর্মিলা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
01.05.2021

নিউজ ডেস্ক : করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে থাকা অবস্থায় হঠাৎ কঠিন সিদ্ধান্ত নিলেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। নিজের সম্পদের ৬০ ভাগ প্রয়াত কনিষ্ঠ সন্তান আরাফাত রহমান কোকো’র পরিবারকে দিতে চান তিনি। বাকি ৪০ ভাগ পাবে জ্যেষ্ঠ সন্তান তারেক রহমান। কিন্তু বেগম জিয়ার এমন নীতিতে অসন্তুষ্ট তারেক পরিবার।

বিদেশে বিনিয়োগ করা সম্পদ দেখভাল করায় বেগম জিয়ার মোট সম্পদের ৬০ ভাগের মালিকানা চান তারেক। জানা গেছে, সম্পদের এমন অসম বণ্টন নিয়ে নতুন করে দ্বন্দ্বে জড়িয়েছেন বেগম জিয়া ও তারেক রহমান। দ্বন্দ্বের জেরে তাদের মধ্যে কথাবার্তাও বন্ধ রয়েছে। বেগম জিয়ার এমন সিদ্ধান্তে তারেকের রোষানলে পড়েছে কোকোর পরিবার।

যুক্তরাজ্যের কিংস্টনকেন্দ্রীক একাধিক গোপন সূত্র বলছে, দুর্নীতি মামলার সাজা নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি বেগম জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকেই তার সম্পদের হিসাব-নিকাশ শুরু করেন তারেক রহমান। কারাগারে থাকতে একাধিকবার সম্পদের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে কোকোর পরিবারের সাথেও দ্বন্দ্ব হয় তারেকের। এমন কি খালেদা জিয়ায় করোনা ট্রিটমেন্ট নিতে হাসপাতালে ভর্তি হলে, তার সঙ্গে কোনো কথা না বলেন, প্রথমেই সম্পদের ভাগের বিষয় জানতে চেয়েছিলেন তারেক রহমান।

এদিকে, ছয় মাস আগে লন্ডন থেকে দেশে এসে বেগম জিয়ার সাথে দেখা করেছিলেন কোকোপত্নী শর্মিলা। এসময় তিনি সেই দ্বন্দ্বের নালিশও করেন। তারপর থেকেই সম্পদের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে ত্রিমুখী দ্বন্দ্ব শুরু হয় জিয়া পরিবারে। তারেকের অতিরিক্ত সম্পদের লোভে বিরক্ত হন বেগম জিয়া। নিজের হাজার হাজার কোটি টাকা থাকলেও মায়ের সম্পদ হাতিয়ে নিতে তারেকের লোভাতুর কর্মকাণ্ডে হতবাক হয়ে পড়েছেন বিএনপি নেত্রী। তাই তিনি ঠিক করেন তার মোট সম্পদের ৬০ ভাগ কোকোর পরিবারকে দিবেন আর বাকি ৪০ ভাগ পাবে তারেক। কিন্তু বেগম জিয়ার এমন সিদ্ধান্ত মেনে নিতে নারাজ তারেক পরিবার। যেহেতু বিদেশে বেগম জিয়ার ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সম্পদ দেখভাল করে তারেক, তাই তিনি এই সম্পদের ৬০ ভাগ নিজের নামে করে দিতে বেগম জিয়াকে চাপ দিচ্ছেন। কোকোর পরিবারকে বঞ্চিত করে তারেকের এমন ফন্দিতে নাখোশ বেগম জিয়া।

এদিকে, মায়ের সম্পত্তি যেনো কোকোপত্নী শর্মিলা মাত্র ৪০ ভাগ পায়, সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন তারেক। শর্মিলাকে সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করতে দেখভাল করার নামে তার প্রাপ্ত সম্পদের পাওয়ার অফ অ্যাটর্নি হাতিয়ে নিতে চাপ দিচ্ছেন। শর্মিলার পরিবারকে গৃহবন্দী করে রাখারও অভিযোগ উঠেছে তারেকের বিরুদ্ধে, আর বিষয়টি বেগম জিয়ার কানে যাওয়ায় তিনি তারেকের প্রতি ভীষণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন।

উভয়ের মধ্যে বাক-বিতণ্ডাও হয়েছে। কথাবার্তা আপাতত বন্ধ রয়েছে বলেও জানা গেছে। বেগম জিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে কোকোপত্নীকে অর্ধেক সম্পত্তি দিয়ে বাকি অর্ধেক সম্পদ জিয়ার নামে নতুন ট্রাস্ট গঠন করে সেখানে দিয়ে যেতে চান বলেও জানা গেছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি