মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » মৃত্যুশয্যায় খালেদা, বিএনপিতে একক কর্তৃত্বের আশায় উৎফুল্ল ফখরুল!



মৃত্যুশয্যায় খালেদা, বিএনপিতে একক কর্তৃত্বের আশায় উৎফুল্ল ফখরুল!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
03.05.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালের কেবিন থেকে সিসিইউতে (করোনারি কেয়ার ইউনিট) স্থানান্তর করা হয়েছে। খালেদার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দলের এক সদস্য জানান, সোমবার বিকেল চারটায় তাকে সিসিইউতে নেওয়া হয়। ওই চিকিৎসক বলেছেন, `খালেদা জিয়ার শ্বাসকষ্ট হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় আমরা তাকে সিসিইউতে নিয়ে এসেছি। এখন তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। দেশবাসীর কাছে তার সুস্থতার জন্য দোয়া কামনা করছি। এদিকে খালেদার মৃত্যুশয্যায় যাওয়ার খবর শুনে হাসি ফুটেছে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মুখে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বিদেশে, দেশে বিএনপির সকল কর্মকাণ্ড মির্জা ফখরুলই নিয়ন্ত্রণ করেন। এতদিন খালেদা জিয়া কিছু বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতেন। কিন্তু করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই বিএনপি পুরোপুরি মির্জা ফখরুলের কব্জায়।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দলের নেতা এফ এম সিদ্দিকী বলেন, মির্জা ফখরুল সাহেব আজ সন্ধ্যায় ফোন করেছিলেন। ম্যাডামের অবস্থা খারাপ এটা শুনে তার মধ্যে চিন্তা দেখলাম না। বরং তিনি বললেন, তাহলে তো আমার দায়িত্ব বেড়ে গেল। বিষয়টা আমার কাছে খুব আশ্চর্যজনক লেগেছে।

দলীয় সূত্র জানায়, মির্জা ফখরুল অনেক দিন থেকেই বিএনপিতে নিজের একক কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছেন। খালেদা জিয়া জেলে থাকায় এবং তারেক রহমান লন্ডনে থাকায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তই তিনি একা নিতেন। এমনকি মাঝে মাঝে লন্ডন থেকে আসা তারেকের নির্দেশও অমান্য করেছেন তিনি। কিন্তু খালেদা জীবিত থাকায় মির্জা ফখরুল একক কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে পারেননি। এখন খালেদার শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় মির্জা ফখরুল আশান্বিত হয়ে উঠেছেন।

তবে জানা গেছে, মির্জা ফখরুল চেষ্টা করলেও সহজেই বিএনপির নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবেন না। তার সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। মির্জা ফখরুলের সাথে রিজভীর দ্বন্দ্বের কথা দলের সবাই জানেন।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ম্যাডাম অসুস্থ এতে আমরা চিন্তিত। তার কিছু হলে দলের হাল ধরবেন কে? তারেক রহমান লন্ডনে, এদিকে মির্জা ফখরুল এবং রুহুল কবির রিজভী ওত পেতে আছেন বিএনপির কর্তৃত্ব নিতে। আমার তো আশংকা ম্যাডামের খারাপ কিছু হয়ে গেলে বিএনপি ভেঙ্গে যেতে পারে। যেই মির্জা ফখরুলকে দলের মহাসচিব করেছেন ম্যাডাম, এখন তার মৃত্যু না হতেই মির্জা ফখরুলের যে অপতৎপরতা এটাকে দুধ কলা দিয়ে সাপ পোষা ছাড়া আর কি বলব! ম্যাডাম আসলে এতদিন যাদের আপন ভেবেছিলেন তারা বিষাক্ত সাপ, সুযোগের অপেক্ষায় ছিলো এতদিন।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কাছে বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিএনপি আসলে রাজনৈতিক দল হিসেবে গড়ে উঠতে পারেনি, এটা আসলে আমলা-ব্যবসায়ী-সুবিধাবাদীদের একটা প্লাটফর্ম। তাই সবাই সবার লাভ নিয়েই ব্যস্ত। দলের মহাসচিব যদি চেয়ারম্যানের মৃত্যুর অপেক্ষা করে, তাহলে তাকে লোভী ছাড়া আর কিই বা বলা যাবে!



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি