মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১



অপরাধ স্বীকার করে হলেও খালেদার মুক্তি চান ফখরুলরা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
05.05.2021

নিউজ ডেস্ক : বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে শ্বাসকষ্টের কারণে সিসিইউতে নেওয়া হয়েছিলো ২৭ এপ্রিল। বর্তমানে তিনি একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷ এমতাবস্থায় খালেদা জিয়ার মারা যাবার ভয় গ্রাস করছে বিএনপিকে। আর এ কারণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে হলেও বিএনপির সকল ভুলের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। বিষয়টি ৫ মে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে মির্জা ফখরুল উত্থাপন করেছেন বলে জানা গেছে। উক্ত বৈঠকে স্থায়ী কমিটির অনেক সদস্য সমর্থন দিলেও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান তাতে সম্মতি দেননি।

বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে। স্থায়ী কমিটির বৈঠকে প্রস্তাবটি পাশ করতে মির্জা ফখরুল ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় দলের বিভিন্ন নেতার কাছে তার এ মনোভাব ব্যক্ত করেন। তার এই মনোভাবে সম্মতি জ্ঞাপন করেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষমা চাওয়ার প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব অন্যান্য নেতাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে গেলে সব সমস্যার সমাধান পাওয়া যাবে। তাই বিএনপির এই দৈন্যদশা নিয়েও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলা প্রয়োজন। কিন্তু বিষয়টি হাওয়ায় উড়িয়ে দেন তারেক রহমান।

বৈঠকে স্কাইপে তারেক রহমান বলেন, কারো কাছে ক্ষমা চেয়ে খালেদা জিয়াকে বের করার কোনো প্রশ্নই আসে না। তারেক রহমানের এমন কথায়, পুরো বৈঠকে খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে কেউ আর কোনো কথা বলেননি।

বিষয়টিকে হতাশাজনক বলে ব্যক্ত করে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, এ মুহূর্তে দল টিকাতে হলে খালেদা জিয়াকে প্রয়োজন। কিন্তু তারেক রহমান তার মুক্তি বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা দেয়ায় আমরা আশাহত। অনেকেই বলছেন, খালেদা জিয়া বের হলে হয়তো তারেক রহমানের গুরুত্ব কমে যেতে পারে। আর এ কারণেই খালেদা জিয়ার মুক্তি মেনে নিতে পারছে না তারেক রহমান।

উল্লেখ্য, এর আগেও বিভিন্ন সময়ে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার চেষ্টা চালালে তারেক রহমানের কারণে পরিকল্পনাগুলো ভেস্তে যায়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি