শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » এবার খালেদা জিয়ার শরীরে মিললো করোনার ভারতীয় ধরন!



এবার খালেদা জিয়ার শরীরে মিললো করোনার ভারতীয় ধরন!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
08.05.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শরীরে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরনের উপস্থিতি পাওয়া গেছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার শরীরে করোনার ভারতীয় ধরন ‘বি.১.১৬৭.২’ এর উপস্থিতির কথা স্বীকার করেছেন তাঁর চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের এক সদস্য। নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই চিকিৎসক বলেন, বাংলাদেশে যে দুইজনের শরীরে প্রথম করোনার ভারতীয় ধরন পাওয়া যায় তারা আমাদের হাসপাতালেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। আমার ধারণা তাদের কারও সংস্পর্শে এসেছিলেন খালেদা জিয়া। এদিকে খালেদার শরীরে করোনার ভারতীয় ধরনের উপস্থিতিতে উৎকণ্ঠিত তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গত ১১ এপ্রিল করোনায় আক্রান্ত হন। তিনি ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিয়েছেন। ২৭ এপ্রিল রাতে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। শ্বাসকষ্ট অনুভব করায় ৩ মে কেবিন থেকে তাকে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার বিএনপির চেয়ারপারসনের শারীরিক কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মেডিকেল বোর্ড দেখেছে, খালেদা জিয়ার কিডনিতে বিষাক্ত রক্ত জমছে। এ নিয়ে চিকিৎসকেরা উদ্বিগ্ন। এর মধ্যে করোনার নতুন ধরনে আক্রান্ত হওয়ায় খালেদা জিয়া বেশ ঝুঁকিতে পড়লেন বলে মনে করে মেডিকেল বোর্ড।

জানা গেছে, বাংলাদেশে দুই ব্যক্তির শরীরে করোনার ভারতীয় ধরনের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। তারা দুজনই পুরুষ এবং উভয়ই সম্প্রতি ভারত থেকে বাংলাদেশে এসেছেন। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) জানায়, ওই দুই ব্যক্তির স্যাম্পল রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতাল থেকে নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) গত মঙ্গলবার জানিয়েছে, করোনার ভারতীয় ধরনটি ‘বি.১.১৬৭.২’ নামে পরিচিত। করোনার এ ধরনকে অতি সংক্রামক বলে মনে করা হচ্ছে। ভারতে করোনার সংক্রমণ মারাত্মকভাবে ছড়িয়ে পড়ার ক্ষেত্রে এ ধরন ভূমিকা রাখছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কিন্তু করোনার ভারতীয় ধরন পাওয়া ওই দুই ব্যক্তি খালেদা জিয়ার কাছে কীভাবে গেলেন জানতে চাইলে তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসক এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, ম্যাডাম অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর তো অনেকেই দেখা করতে এসেছেন। এরমধ্যে নেতাকর্মী, চিকিৎসকরা রয়েছেন। হয়ত তাদের কেউ এসেছিলেন। তবে যেভাবেই হোক, ম্যাডামের শরীরে যেহেতু এর অস্তিত্ব মিলেছে, আমাদের প্রধান কাজ তাঁর চিকিৎসায় জোর দেওয়া। কীভাবে আসলো সেটা জানা জরুরী না।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, করোনার ভারতীয় ধরন তো খুবই ভয়ঙ্কর। এর ফলে ভারতে আজ ভয়ঙ্কর অবস্থা। লাখ লাখ রোগী শনাক্ত হচ্ছে, প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মরছে। এই অবস্থায় বিএনপির নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকা দরকার ছিলো। এর আগে গুলশানের বাসায় নেতাকর্মীদের সাথে মিশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন খালেদা জিয়া। এখন হাসপাতালে যেয়েও যদি একই কাজ করেন তাহলে বলতে হবে বিএনপির নেতাকর্মীদের দায়িত্ববোধ বলতে কিচ্ছু নেই। দলের নেতার জীবনকে হুমকিতেই ফেলে দিল তারা।

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি