বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১



ফখরুলের পর এবার বিএনপির মহাসচিব আমির খসরু


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
12.05.2021

নিউজ ডেস্ক: ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করলেও নতুন রাজনীতির ডামাডোলে টিকতেই পারছে না বিএনপি। নেতৃত্বহীনতায় ভুগলেও বিএনপির সম্পূর্ণ অবস্থার জন্য মহাসচিব মির্জা ফখরুলকেই দায়ী করছেন অধিকাংশ নেতা। যার কারণে আগামী জাতীয় কাউন্সিলে মহাসচিব পদ থেকে ছিটকে পড়তে পারেন মির্জা ফখরুল, এমন গুঞ্জন চাউর হয়েছে বিএনপির রাজনীতিতে।

মহাসচিব পরিবর্তন নিয়ে চলমান গুঞ্জনের সত্যতা যাচাই করতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ১৪ বছরে অনুষ্ঠিত হওয়া সকল নির্বাচনে ভরাডুবি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে মতের অমিল, জামায়াতের নীরবতা এবং মনোনয়ন বাণিজ্যে জড়িয়ে যাবার পর থেকে মির্জা ফখরুলকে আর বিশ্বাস করতে পারছে না তৃণমূল বিএনপির নেতারা। ফলে শুনছি মির্জা ফখরুলকে মহাসচিব হিসেবে আর দেখতে চায় না বিএনপির নেতৃবৃন্দ। তৃণমূল বিএনপির অংশগ্রহণে আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর নেতৃত্বে নতুন রূপে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে বিএনপি। তবে এ খবর সত্যি নাও হতে পারে।

এদিকে বিষয়টি ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে নেতৃত্বের প্রশ্নে দলের নেতা-কর্মীরা মূলত দুটি ভাগে বিভক্ত ছিল। সিনিয়র নেতাদের সমর্থনে ফখরুল-গয়েশ্বর ও তারেক-আমির খসরু সমর্থনে আরেকটি পক্ষের বিভাজন ছিল, যা সকলেরই জানা। আর সেকারণেই একই ইস্যু নিয়ে প্রায়শই মির্জা ফখরুল ও আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে আলাদা আলাদাভাবে সংবাদ সম্মেলন করতে দেখা গেছে। আমি নিজেও মাঝে মাঝে আলাদাভাবে সংবাদ সম্মেলন করি। অনেকে বলেছিলেন, আমাকে মহাসচিব পদ গ্রহণ করতে। তবে আমি যুগ্ম মহাসচিব হিসেবে ভালো আছি। তাই এখন অনেকে চাইছেন আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী সামনে আসুক।

তিনি আরো বলেন, মূলত তারেক রহমানের গ্রিন সিগন্যাল পেয়েই আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী এগিয়ে যাচ্ছেন।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষক বিভুরঞ্জন সরকার বলেন, মির্জা ফখরুল একজন ক্লিন ইমেজের মানুষ। তিনি বিএনপিকে তার নিজের সন্তানের মতো আগলে রাখলেও দলের জন্য কিছুই করতে পারছেন না। এমতাবস্থায় যদি বিএনপির পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, নতুন নেতৃত্বের প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে এটা একান্ত তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। তবে আমি মনে করি, মির্জা ফখরুলের মতো মানুষ বিএনপিতে দ্বিতীয়টা নেই। এ অবস্থায় বিএনপি যদি মির্জা ফখরুলকে সরিয়ে দেয়, তবে হিতে বিপরীতও হতে পারে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি