শুক্রবার ১৮ জুন ২০২১



দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
24.05.2021

নিউজ ডেস্ক: অনিয়ম-দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কড়া হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন নড়াইল-২ আসনের এমপি ও জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। তিনি বলেছেন, অনিয়ম ও দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। এবার কিন্তু কোনো পিরিত হবে না।

খেলার মাঠ থেকে রাজনীতিতে আসেন মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। ক্রিকেট মাঠেও যেমন হুংকার দিয়ে প্রতিপক্ষ শিবিরে ভয় ধরিয়ে দিতেন, রাজনীতিতেও তাই। মানুষকে অপরাধ ও দুর্নীতি থেকে মুক্ত করার রাজনীতি করছেন সাবেক এ অধিনায়ক।

মঙ্গলবার বিকেলে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ইতনা ইউনিয়নের পাংখারচর গ্রামে নদীভাঙন ও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শনে যান মাশরাফি। সেখানে মানুষের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন তিনি। গ্রামের মানুষকে গ্রামের ভাষাতেই বুঝিয়েছেন।

সেখানে মাশরাফির দেয়া বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। মাশরাফি তার বক্তব্যে বলেন, ‘ঈদের নামাজ আপনারা ৩০টা রোজা রেখেও পড়তে পারেননি। অমুক নেতা ঢাকায় বসে বলছে মাইরে দিয়ে আয়, আপনি মেরে দিলেন। মাইরে দিয়ে এসে আপনার কী হলো, আপনি বুঝলেন না। সে কি আপনার মামলা লড়ে? কোনো দিন লড়ছে? জেল যা খাটার তা তো আপনারাই খাটছেন, নাকি? খাটছেন না?’

তিনি বলেন, ‘তারা আপনাদের কী দেয়? খাইতে দেয়? এই ধরেন! আমার কথায় আপনারা এইগুলো করতেছেন, ধইরে নিলাম আমি আপনাকে খাইতে দিই? পরতে দিই? ছেলেমেয়ের পড়াশোনা করাই? হাসপাতালে ভর্তি করাই? তাহলে আমি কিসের নেতা! আমার কথায় আপনি আরেকজনকে মেরে ফেলবেন!

তিনি আরো বলেন, মারামারি করবেন তো খবর আছে। কেউ মারামারি করবেন না, এইবার কিন্তু কোনো পিরিত হবে না।

মাশরাফি বলেন, এই এলাকায় আসলাম পুরো রাস্তাটাই ছিল খারাপ। এখন পর্যন্ত কারো মুখে শুনলাম না যে ভাই আমাদের এই রাস্তাটা ঠিক করে দেন। শুধু রাস্তার মাঝপথে একজন মায়ের বয়সী নারী আমাকে অনুরোধ করলেন, বাবা, আমাদের এই রাস্তাটা একটু ঠিক করে দেন।

এ সময় বক্তব্য রাখেন লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমানসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও এলাকার প্রতিনিধিরা।

ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, ইতনা ইউনিয়নের দুর্গম পাংখারচর গ্রামের চলমান বিরোধে হত্যাসহ ২২টি মামলা ছিল। দেড় বছর আগে এসব মামলা মীমাংসা হলেও দেড় মাস পর থেকে আবার বিরোধের সৃষ্টি হয়। এবার এমপি মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার উপস্থিতিতে মীমাংসা করা হলো। এখন থেকে এলাকাবাসী শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করবে বলে আশা করি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি