শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » বাংলাদেশে ব্যবসার আশায় অতিরিক্ত এলএসডি কিনে সর্বশান্ত তারেক



বাংলাদেশে ব্যবসার আশায় অতিরিক্ত এলএসডি কিনে সর্বশান্ত তারেক


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
03.06.2021

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশে এলএসডি বা লাইসার্জিক অ্যাসিড ডায়েথিলামাইড অবৈধ হলেও লন্ডনের বারগুলোতে তা বৈধ ছিলো। বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশে ভালো ব্যবসা করা যাবে মনে করে, ৫০ কোটি পাউন্ডের এলএসডি কিনে সর্বশান্ত হয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান। লন্ডন বিএনপির একটি সূত্র ‍এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে লন্ডন বিএনপি নেতা নাম প্রকাশ না করা শর্তে বলেন, অবৈধ ব্যবসা দেখলেই যেন মাথা ঠিক থাকে না তারেক রহমানের। হোক সেটা জুয়া কিংবা নেশার ব্যবসা। তিনি গত কয়েক বছর অল্প অল্প করে এলএসডি কিনে এজেন্ট মারফত বাংলাদেশের প্রেরণ করলেও এবার বড় ভুল করেছেন। একত্রে ৫০ কোটি পাউন্ডের এলএসডি কিনেছেন। হয়তো তিনি তার ব্যবসায়ে সফল হয়ে যেতেন।

কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র হাফিজুর রহমান অতিরিক্ত এলএসডি সেবনের ফলে মারা যায়। এতেই ঘটে বিপত্তি। তিলে তিলে তৈরি করা ১০ বছরের ব্যবসা হঠাৎ মুখ থুবড়ে মাটিতে পড়ে গেলো।

তবে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে তারেক রহমানের এক উপদেষ্টা জানান, ডেনমার্কের একটি এজেন্সির ওপর ভিত্তি করে এবার এলএসডি কিনতে টাকা লাগান তারেক। তারা বলেছিল, এবার বাংলাদেশে জমজমাট ব্যবসা হবে। সে অনুসারেই ৫০ কোটি পাউন্ডের এলএসডি কিনেছিলেন তারেক। তবে তারেক রহমান, এভাবে ধরা খাবেন বুঝতে পারিনি।

এদিকে অবৈধ ব্যবসায়ে টাকা খুইয়ে তারেক রহমান বাসায় গিয়ে লংকাকাণ্ড বাঁধিয়ে দেন বলে জানা গেছে। অর্থ খুইয়ে একটি বারে মদ খেয়ে মদ্যপ তারেক বাসায় গিয়েই হইচই শুরু করেন। আরো রাগান্বিত হন যখন জানতে পারেন, বড় মেয়ে জাইমা রহমান গভীর রাতে বন্ধুদের সাথে বারে আড্ডা দিতে গেছেন। পরবর্তীতে স্ত্রী জোবায়দা রহমানকে এর জন্য জবাব দিতে বললে উল্টো জোবায়দা তারেককে মদপান, জুয়া ও মাতলামি করার জন্য তিরস্কার করেন।

তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে মাতাল তারেক কোমরের বেল্ট খুলে জোবায়দাকে বেদম প্রহার করেন। স্বৈরশাসক জিয়া যেমন খালেদাকে বেল্ট দিয়ে পেটাতেন, তারেকও বাবার কৌশল অবলম্বন করে জোবায়দাকে মারধর করেন।

মধ্যরাতে তাদের পারিবারিক কলহ, উচ্চস্বরে অশ্লীল ভাষায় গালমন্দে বাঙালি প্রতিবেশীরা বিরক্তি প্রকাশ করেন। জানা গেছে তাদের এমন প্রাত্যহিক কর্মকাণ্ডে বিরক্ত প্রতিবেশীরাও।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি