শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » আন্দোলনের পথে না হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি



আন্দোলনের পথে না হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
06.06.2021

নিউজ ডেস্ক: পর পর দুটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভরাডুবি। এক নির্বাচন বর্জনের পর দীর্ঘ এক যুগের বেশি সময় ধরে ক্ষমতার বাইরে বিএনপি। বারবার চেষ্টা করেও সরকার পতনের আন্দোলনে সফল হতে পারেনি দলটি। তাই অনেকটা হতাশা নিয়েই আন্দোলনের পথে না হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দুর্নীতির দায়ে দীর্ঘ ২৫ মাস কারাভোগের পর এখন বাসায় অবস্থান করছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। শেষ বয়সে এসে নতুন করে আন্দোলনের মাঠে নামার সামর্থ্য নেই তার।

এদিকে দলের দ্বিতীয় নেতা তারেক রহমানও পলাতক রয়েছেন লন্ডনে। এর বাইরে দলের ভেতর রয়েছে নানা কোন্দল। এমন পরিস্থিতিতে আন্দোলনের কোনো পথই আর খোলা নেই বিএনপির সামনে।

চলমান করোনা ও বন্যা পরিস্থিতিকে পুঁজি করে জনগণের কিছুটা কাছে যেতে চেয়েছিলো দলটি। তবে সেখানে নানা অভিযোগ, দুর্নীতি আর অনিয়মের কারণে ব্যাপক সমালোচনা হয়েছে। ধারণা করা হয়েছিলো, মিটিং-মিছিল না থাকলেও আপাতত ত্রাণকে কাজে লাগিয়ে রাজনীতি করা যাবে। তবে সেই চেষ্টাতেও ব্যর্থ বিএনপি।

দলের নীতিনির্ধারণী সূত্রে জানা গেছে, কোনো পরিকল্পনাই আর কাজে আসছে না বিএনপির। কারাগার থেকে বের হয়ে খালেদা জিয়া সরকারে যাওয়ার নতুন প্ল্যাটফর্ম খুঁজলেও তাতে সাড়া মেলেনি। বিদেশি কূটনীতিকদের কাছেও প্রত্যাখ্যাত হয়েছে দলটি। বর্তমানে খালেদা জিয়া তার ছেলের নির্দেশেনা মানছেন না। এছাড়া খোঁজও নিচ্ছেন না দলের স্থায়ী কমিটি ও সিনিয়র নেতাদের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দলটির নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের এক নেতা বলেন, দলের সার্বিক কার্যক্রমে আসলে খালেদা জিয়া হতাশ। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডনে পলাতক থাকায় আন্দোলনের পরিবেশ তৈরি করা সম্ভব হয়নি। যার ফলে বিএনপি ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না।

দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, করোনায় পাশে থাকার বিষয়টা আমরা প্রথমেই শুরু করলাম। কিন্তু নানা অনিয়মে এই কার্যক্রম নিয়ে এগোনো যায়নি। আপাতত দলের বড় কোনো পরিকল্পনা নেই।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি