শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » যে বেশি টাকা দিবে সেই পাবে যুবদলের সাংগঠনিক পদ



যে বেশি টাকা দিবে সেই পাবে যুবদলের সাংগঠনিক পদ


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.06.2021

নিউজ ডেস্ক: একই পদে একাধিক প্রার্থীর মধ্যে যে বেশি টাকা দিচ্ছেন তাকেই দেয়া হচ্ছে যুবদলের সাংগঠনিক পদ। আর এসব টাকার বড় একটা অংশ যাচ্ছে লন্ডনে। হাওয়া ভবনের সাবেক কর্মকর্তা রকিবুল ইসলাম বকুল টাকা লেনদেনের বিষয়টি অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ করছেন।

জানা গেছে, সম্প্রতি যুবদলের খুলনা বিভাগের উপজেলাগুলোর কমিটি গঠন হয়েছে। টাকা দিয়েও এসব কমিটিতে পদ না পাওয়া অনেকে নেতাদের কাছে অভিযোগ নিয়ে ঘুরছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও ভাইরাল হয়েছে টাকা লেনদেনের স্ক্রিনশট।

অনুসন্ধানে জানা যায়, তৃণমূলকে শক্তিশালী করতে যোগ্য ও ত্যাগী নেতাদের নেতৃত্বে আনতে দেশের সব বিভাগের মতো খুলনায় যুবদলের টিম গঠন করে দেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। তবে খুলনার টিম চলছে ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও হাওয়া ভবনের সাবেক কর্মকর্তা রকিবুল ইসলাম বকুলের নির্দেশেই। তারা ক্যাশিয়ার নিয়োগের মাধ্যমে পদ বিক্রি করে আয় করছেন কোটি কোটি টাকা।

সূত্রমতে, বিএনপির হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে ত্যাগী ও যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে যুবদল পুনর্গঠনের জন্য পৃথক টিম গঠন করে দেয়া হয়েছে। আর এসব টিমের বিরুদ্ধেই উঠেছে অভিযোগ। নগদ টাকা, মদ-ফেনসিডিল ও উপঢৌকনের বিনিময়ে পদ বিক্রির একাধিক প্রমাণ পাওয়া গেছে।

সংগঠনের স্থানীয় নেতারা জানান, যুবদলের খুলনা বিভাগীয় টিমের পদ বাণিজ্য এখন ওপেন সিক্রেট। এ টিমে বকুলের ক্যাশিয়ার হিসেবে মুখ্য ভূমিকা পালন করছেন যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও খুলনা মহানগর যুবদলের সভাপতি মাহবুব হাসান পিয়ারু এবং খুলনা জেলা যুবদলের সভাপতি শামীম কবির। টিমে আরো পাঁচজন আছেন। তারাও কমবেশি বাণিজ্য করছেন। তবে সেটা গোপনে। আর শামীম-পিয়ারু প্রকাশ্যে টাকা তুলছেন বকুলের নামে।

যুবদলের খুলনা টিমের একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বকুল বলেছে, টাকা তুলে লন্ডনে ‘ভাইয়াকে’ পাঠানো হচ্ছে। সব বিভাগীয় টিম টাকা তুলছে। ভাইয়া (তারেক জিয়া) ফান্ড রেইজ করছেন। এটি পার্টির দুর্দিনে লাগবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি