শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১



ইসরায়েলের নেতা মনসুর আব্বাসে ভরসা বিএনপির


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
09.06.2021

নিউজ ডেস্ক : সম্প্রতি ইসরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রী কট্টর ইহুদীপন্থী ইয়ামিনা দলের প্রধান নাফতালি বেনেটকে সমর্থন করে বিপাকে পড়েছিলো বিএনপি। মূলত বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ইসরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, ইসরায়েলের গণতন্ত্র সফল হয়েছে। ইসরায়েলের নির্বাচনে ভোটাররা নাফতালি সরকারকে নির্বাচিত করে গণতন্ত্রের পরিচয় দিয়েছে। ইসরায়েলের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কের ভিত্তিটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, কারণ সত্যিকার অর্থে তারাই পৃথিবী শাসন করছে। ফলে তাদের সমর্থন দেয়া দোষের কিছু নয়।

আমির খসরুর এমন বক্তব্যের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েলকে সমর্থন করায় সাধারণ মানুষ বয়কট বিএনপির হ্যাশট্যাগ চালু করে দেয়। এমতাবস্থায় সমালোচনা থেকে বাঁচতে বোল পাল্টালো বিএনপি। এখন বিএনপি বলছে, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাফতালিকে নয় বরং উক্ত দলের সঙ্গে জোট করা মুসলিম নেতা মনসুর আব্বাসকে সমর্থন করেছে বিএনপি। আর এর পেছনে নাকি তাদের কোনো রাজনৈতিক স্বার্থ নেই।

তবে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আদৌতে রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের জন্য ইসরায়েলের নতুন সরকারকে সমর্থন দিচ্ছে বিএনপি। ভারতের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক তেমন ভালো না থাকায়, ইসরায়েলকে কাছে রাখতে চাইছে বিএনপি। কারণ ইসরায়েল হচ্ছে পৃথিবীর সব চেয়ে ক্ষমতাধর রাষ্ট্রের মধ্যে একটি। বিএনপি ভেবে ছিলো ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করলে হয়তো বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সহজ হবে। সঙ্গে ইসরাইলের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত সুদৃঢ়। তাই ইসরায়েলের হাত ধরে বাংলাদেশের ক্ষমতায় বসারও স্বপ্ন দেখেছিলো তারা। তবে তাদের আশায় গুড়ে বালি দিলো বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ। ইসরায়েলকে গ্রহণ করায় বিএনপিকে বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশ। এমতাবস্থায় খানিকটা বাধ্য হয়ে বিএনপি বলছে, ইহুদী নেতাদের নয় বরং ইহুদী নেতাদের সঙ্গে জোট করা মুসলিম নেতা মনসুর আব্বাসকে সমর্থন দিয়েছে বিএনপি। যদিও বাস্তবতা হচ্ছে ইসরায়েলের সমর্থন করায় উক্ত মুসলিম নেতা স্বয়ং মুসলিমদের কাছেই নিন্দিত হয়েছেন। কারণ মুসলিম হিসেবে ইহুদীর সঙ্গে আঁতাত সম্পূর্ণ ইসলাম বিরোধী কাজ।

এ বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আমরা কখনোই ইসরায়েলের ইহুদীপন্থী নেতা নাফতালি বেনেটকে সমর্থন দেয়নি। আমরা সমর্থন দিয়েছিলেন মুসলিম নেতা মনসুর আব্বাসকে। তাছাড়া ইসরায়েলকে সমর্থন দেয়া দোষের কিছু নয়। বাংলাদেশের মানুষ যদিও মুখে মুখে বলে তারা ইসরায়েলকে ঘৃণা করে, তবে মনে মনে তারা ইসরায়েলকে বর্জন করতে পারে না। কারণ আইটি ক্ষেত্রের প্রতিটি পণ্যের জন্য বাংলাদেশসহ পৃথিবীর প্রতিটি দেশকে ইসরায়েলের ওপর নির্ভর করতে হয়। ফলে লুকোচুরি না করে, বিষয়টি মেনে নিতে হবে। আর কারণেই আমরা সরাসরি ইসরায়েলকে সমর্থন দিয়েছিলাম। তবে যেহেতু দেশের মানুষ বিষয়টিকে ভালোভাবে গ্রহণ করেনি, তাই আমাদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে গিয়ে বর্তমানে আমরা ইহুদী সমর্থক মুসলিম নেতাকে সমর্থন দিয়েছি। আশা করছি, এবার বাংলাদেশের জনগণ বিষয়টিকে ভালোভাবে গ্রহণ করবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি