বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১



ইসরায়েলের মন জয় করতে নতুন কৌশলে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
09.06.2021

নিউজ ডেস্ক: দীর্ঘ শাসনের অবসানের মুখে থাকা ইসরায়েলে প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর ভাগ্য নির্ধারণ হতে চলেছে আগামী ১৩ জুন রোববার।

ইসরায়েলের ১২০ আসনের পার্লামেন্টে ডানপন্থী, বামপন্থি, মধ্যপন্থি এবং আরব দলগুলোকে নিয়ে নতুন যে জোট গঠন করা হয়েছে তারাই এখন সংখ্যাগরিষ্ঠ। যদি ১৩ জুন ভোটের মাধ্যমে নতুন সরকার পার্লামেন্টের স্বীকৃতি পেয়ে যায় তবে ওই দিনই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হবে এবং জাতীয়বাদী নেতা নাফতালি বেনেট নতুন প্রধানমন্ত্রী হবেন।

এদিকে ইসরায়েলের সরকার গঠন নিয়ে বাংলাদেশে নতুন হিসাব কষছে বিএনপি। তাদের মতে সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ইসরায়েলের সঙ্গে আপোষ করলে পরবর্তীতে বাংলাদেশের সরকার পতনের ছক আঁকা সহজ হবে। এরই মধ্যে সে কৌশলে বিএনপি নেতারা সমানতালে শামিল হয়েছে। জোট ও দলের শীর্ষ নেতারা ইসরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেটের গুণগান শুরু করেছে। যা তাদের সমন্বিত কৌশল বলেই বিবেচিত হচ্ছে।

নাফতালি সরকারের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, ইসরায়েলে এতো দিন কট্টরপন্থী ইহুদি সরকার ছিলো। কিন্তু বর্তমান জোটে মুসলিম নেতাও রয়েছে। তাই আমরা তাদের সমর্থন দিতে চাই। এতে আমাদের কোনো স্বার্থ নেই, শুধু ফিলিস্তিনের মুসলিমদের কথা বিবেচনায় আমরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এছাড়া খসরু বলেছেন, মুখে মুখে নয়, নাফতালি সরকারের উদ্দেশে বিএনপির অভিনন্দন বার্তা লিখিত আকারে দেয়া হবে। আমরা চাই, দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারে ইসরায়েলের নতুন সরকার যাতে বিএনপির স্বার্থকে গুরুত্ব দেয়।

তবে বিএনপির এমন ইসরায়েল প্রীতিকে সহজভাবে নিচ্ছেন না রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তার বলছেন, যদিও বিএনপি একজন মুসলিম নেতার উদাহরণ দিয়ে ইসরায়েলকে সমর্থন করার কথা বলছে। তবে আক্ষরিক অর্থে শুধুমাত্র ক্ষমতায় আসার জন্যই বিএনপি ইসরায়েলের সমর্থন করছে। কারণ বর্তমান ইসরায়েলের রাজনীতিতে স্বয়ং ফিলিস্তিনের মুসলিমরাই ইসরায়েলের সেই মুসলিম নেতাকে সমর্থন করছে না। ফলে বিএনপির ইসরায়েলকে সমর্থন দেবার মূল কারণ এখন জনসম্মুখে স্পষ্ট। শুধুমাত্র ক্ষমতায় আসার জন্য বিএনপির এমন নোংরা খেলা জনগণ কখনোই মেনে নেবে না বলেই বিবেচিত।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি