মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » তারেক রহমানকে নারী সাপ্লাই দিতেন পরীমনিকে হেনেস্থাকারী নাসির



তারেক রহমানকে নারী সাপ্লাই দিতেন পরীমনিকে হেনেস্থাকারী নাসির


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
15.06.2021

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠ পুত্র তারেক রহমানকে নারী সাপ্লাই দিতেন অভিনেত্রী পরীমনিকে হেনেস্থা করা উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ। অনুসন্ধানে এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

জানা যায়, আশির দশকের গোড়ার দিকে বিএনপির পক্ষ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএম হলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন নাসির উদ্দিন মাহমুদ। এ সময় রাজনীতির কারণে তারেক রহমানের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তবে ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এলে ফুলে ফেপে উঠেন নাসির। সে সময় রাজনীতির পাশাপাশি বিএনপির সিনিয়র নেতাদের নারী দিয়ে সহায়তা করতে থাকেন। এ ব্যবসা করে স্বাবলম্বী হবার পর ১৯৯৫ সালে বিএনপি ক্ষমতাচ্যুত হলে নাসির ডেভেলপার ব্যবসায় ঝুঁকেন। তবে ২০০১ সালে বিএনপি ফের ক্ষমতায় এলে তারেক রহমানের অনুরোধে ফের নারী সাপ্লাইয়ের কাজে নামেন নাসির। যদিও সে সময় ডেভলপার ব্যবসাও চালিয়ে যাচ্ছিলেন নাসির। অপরদিকে খোলা মেলাভাবে নারী সাপ্লাই না করে এ মেয়াদে চুপিসারে শুধু মাত্র তারেক রহমান ও তার বন্ধু গিয়াস উদ্দিন মামুনকে নারী সাপ্লাই দিতেন নাসির।

উক্ত নারীদের নিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের গাজীপুরের বাগানবাড়ি খোয়াব ভবনে মদ, জুয়ার আসর বসাতেন। সেখানে চিত্রনায়িকা শায়লা, জনা, ফারহানা নিশো, অদিতি সেনগুপ্ত, বেবী নাজনীন, শামা ওবায়েদের পাশাপাশি একাধিক ভারতীয় নায়িকাও আসা-যাওয়া করতো। আর এগুলোর পূর্ণ তত্ত্বাবধানে ছিলেন তারেক রহমান ও তার বন্ধু গিয়াসউদ্দিন আল মামুন। তারা ওই সমস্ত নারীদের নির্দেশনা দিয়ে যৌবনের জালে বিএনপিপন্থী ব্যবসায়ীদের ফাঁসিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিতে। এতে ভেঙেছে অনেকের সাজানো সুখের সংসার। কেউবা হারিয়েছে নিজের সর্বস্ব।

জানা গেছে, চক্রটি এখনো সক্রিয়। চুপিসারে চালিয়ে যাচ্ছে এই অপকর্ম। তবে তারেক রহমান লন্ডনে অবস্থান করায় এসব দেখভাল করছে ছাত্রদল ও যুবদলের একটি অংশ। আর তাদের দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন দলের তারেকপন্থী সিনিয়র একটি অংশ। তারা ব্যবসার হিসেব-নিকাশ কষে লভ্যাংশটুকু তারেক রহমানকে পাঠিয়ে দিচ্ছেন তার আয়েশি জীবনযাপনের জন্য।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি