বুধবার ২৮ জুলাই ২০২১



পরীমনির নির্যাতনকারী নাছিরকে বাঁচাতে তৎপর কেন বিএনপি?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
16.06.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নায়িকা পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টাকারী উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির ইউ মাহমুদের আটক নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির উদ্যোগে এক গোলটেবিল বৈঠকে তিনি বলেছেন,‘পরীমনি কে? তার মামলায় যেখান থেকে নাসির ইউ মাহমুদকে গ্রেপ্তার করেছে সেই বাড়িটাও তার না। প্রশাসন কি এভাবে তুলে নিয়ে সম্মান, পরিবারের কাছে সম্মান সবকিছু ধূলিসাৎ করে দেবে?’

মির্জা ফখরুলের এই বক্তব্যের পর রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রশ্ন উঠেছে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত একজন ব্যক্তির জন্য বিএনপি মহাসচিবের মায়াকান্নার কারণ কি? একজন নারী নিপীড়কের সম্মান নিয়ে মির্জা ফখরুল এত চিন্তিত কেন? মির্জা ফখরুল কি নাছির মাহমুদকে বাঁচাতে চেষ্টা করছেন? কিন্তু নির্যাতনকারী নাছিরকে বাঁচানোর চেষ্টার নেপথ্যের কি সেই কারণ?

জানা গেছে, ৮ জুন রাতে ঢাকা বোট ক্লাবে পরীমনিকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা করা হয়। এরপর পরীমনি বাদী হয়ে গত সোমবার নাসির ইউ মাহমুদ, অমিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সাভার থানায় মামলা করেন। পরীমনি ফেসবুক পেজে এবং মিডিয়ার সামনে সংবাদ সম্মেলনে তার ওপর ঘটে যাওয়া নির্যাতনের বর্ণনা তুলে ধরলে বিষয়টি নিয়ে শুরু হয় তুমুল আলোচনা-সমালোচনা। এরপর পুলিশ দ্রুত নাসির ইউ মাহমুদসহ জড়িতদের গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারের পর নির্যাতকদের সম্পর্কে একে একে নানা তথ্য উঠে আসতে থাকে। তখন জানা যায়, পরীমনিকে নির্যাতনকারী ব্যবসায়ী নাছির ইউ মাহমুদ ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য (বিনোদন ও সংস্কৃতি)। অতীত ঘাটতে গিয়ে দেখা যায়, আশির দশকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এস এম হল শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন নাছির ইউ মাহমুদ। দীর্ঘদিন বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত থাকার পর একপর্যায়ে জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হন নির্যাতক। বর্তমানে দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য তিনি।

সূত্র জানায়, পরীমনির নির্যাতনকারী নাছির বর্তমানে জাতীয় পার্টি করলেও প্রথম ভালোবাসা বিএনপির সাথে যোগাযোগ বন্ধ করেননি। নিয়মিত তারেক রহমানের সাথে কথা হত তার। এছাড়াও তারেক রহমানকে নিয়মিত নারী সাপ্লাইও দিতেন নাছির। তারেককে নিয়মিত চাঁদাও দিতেন। নাছিরকে বাঁচাতে এজন্যই তারেকের নির্দেশে তৎপর হয়ে উঠেছেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপির বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, একজন নিপীড়ককে বাঁচাতে বিএনপির এরকম তৎপরতা ন্যাক্কারজনক। খালেদা জিয়ার হাত থেকে দলটি তারেকের করায়ত্ত হওয়ার ফলেই এটা হয়েছে। আমি দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছি, তারেকের মত অর্থ এবং নারীলোভী একটি ছেলে বিএনপির মত দল চালাতে অক্ষম। এই অযোগ্য ছেলের জন্য বিএনপিকে ভুগতে হচ্ছে। এখন তারেকের নির্দেশে নাছিরকে বাঁচাতে গিয়ে নারী নির্যাতকের দল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেল বিএনপি। এর ফলে দলটি আরও জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ল।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি