বুধবার ২৮ জুলাই ২০২১



সিনিয়র নেতাদের বাতিল মাল বলে গণ্য করে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
17.06.2021

নিউজ ডেস্ক : দলীয় সিদ্ধান্তের ব্যাপারে কিছুই জানানো হচ্ছে না দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের। করোনার সময় শুরু হবার পর থেকে এমনিতেই চুপসে গেছে বিএনপি। বলা হচ্ছে বিএনপি থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে আন্দোলন করা হবে। কিন্তু কোন প্রক্রিয়ায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো, সে বিষয়ে অবগত করা হয়নি বিএনপির বয়োজোষ্ঠ নেতাদের। এ নিয়ে মনঃক্ষুন্ন মনোভাব প্রকাশ করছেন সিনিয়ররা। এ কারণে দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে সিদ্ধান্ত আসায় তারা সিদ্ধান্তগুলো চুপচাপ মেনে নিলেও গোপনে দলের কার্যক্রম থেকে নিজেদের গুটিয়েও নিতে চাইছেন, গুরুত্ব না পাওয়া বয়োজোষ্ঠরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, করোনার সময় কি আন্দোলন হবে? নাকি করোনা যতদিন আছে ততদিন আন্দোলন হবে না? বিএনপি কি আদৌ ক্ষমতায় যেতে চায় নাকি চায় না? এই বিষয়গুলো নিয়ে জ্যেষ্ঠ নেতাদের অনেকে খটকায় পড়েছেন। কারণ এসব বিষয়ে দলের নীতিনির্ধারণী পর্ষদ স্থায়ী কমিটিতে কোনো আলোচনা হয়নি। সিদ্ধান্তগুলো এসেছে লন্ডনে নির্বাসিত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছ থেকে। নেতাদের কেউ কেউ হয়তো জানতেন কী হতে যাচ্ছে। নেতারা বলছেন, বিষয়গুলো নিয়ে একধরণের লুকোচুরি দৃশ্যমান ছিলো। যা এখনও অব্যাহত রয়েছে। বিভিন্ন সিদ্ধান্ত জ্যেষ্ঠ নেতাদের কাছ থেকে লুকিয়ে বিএনপিকে কোন উচ্চতায় নিতে চাচ্ছে তা আমাদের বোধগম্য নয়।

এদিকে বিভ্রান্তি আরও বেড়েছে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যে, বুধবার (১৬ই জুন) সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, আগামী ছয় মাসের মধ্যে বিএনপি আন্দোলনে নামবে।

অপরদিকে অন্যসংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী বলেন, আপাতত আন্দোলন নিয়ে ভাবছে না বিএনপি। বোঝাই যাচ্ছে, বিএনপিতে বিভক্তির সঙ্গে সঙ্গে সমন্বয়হীনতাও বিদ্যমান।

এ বিষয়ে দুজন জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, কে কি সিদ্ধান্ত দেয়, কিছুই বুঝি না। এসব বিষয়ে দলীয় ফোরামে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিলে ভালো হতো। কিন্তু কেন্দ্রীয় কমিটি আমাদের বাতিল বলে গণ্য করে। কিন্তু তারা বুঝতে পারছেন না, যে প্রক্রিয়ায় তারা সিদ্ধান্তগুলো নিচ্ছেন তাতে নেতারা নিজেদের আগাছা ভাবতে শুরু করেছেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি