মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » জোবায়দার হাতে বিএনপির দায়িত্ব দিতে চান তারেক



জোবায়দার হাতে বিএনপির দায়িত্ব দিতে চান তারেক


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
13.07.2021

নিউজ ডেস্ক : খালেদা জিয়ার বর্তমান পরিস্থিতি প্রমাণ করছে হয়তো বিগত পাঁচ বছরেও বন্দি জীবন থেকে বের হতে পারবেন না তিনি। এমতাবস্থায় দলকে সুসংগঠিত করতে খালেদা জিয়ার বিকল্প হিসেবে তারেক রহমানের স্ত্রী জোবায়দা রহমানকে ভাবছেন বিএনপির নীতিনির্ধারকেরা। বিষয়টি নিয়ে দলের মধ্যে আলোচনা হলেও প্রকাশ্যে কেউ মুখ খুলছেন না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দলটির এক আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার পর খালেদা জিয়া একেবারে নড়বড়ে হয়ে গিয়েছেন। বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক যে অবস্থা তাতে তিনি মুক্তি পেয়ে দলের হাল কতটুকু ধরতে পারবেন, তা নিয়ে নেতাদের মধ্যে অনিশ্চয়তা রয়েছে। সেক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবে ধরে নেয়া যেতে পারে যে, খালেদা জিয়া দলীয় প্রধান না হলে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান হবেন দলের প্রধান। তবে যেহেতু তারেক রহমান দেশে ফিরতে পারছেন না তাই জোবায়দা রহমানকেই যোগ্য বিকল্প বলে ভাবা হচ্ছে।

বিষয়টিতে ক্ষোভ প্রকাশ করে দলের এক সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, এরকম সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক। রাজনীতিতে অনভিজ্ঞ একজনকে দলের প্রধান করার অর্থ হচ্ছে দলের ভীত নড়বড়ে হয়ে যাওয়া। যেখানে দলকে বাঁচিয়ে রাখা জরুরি সেখানে তারেক রহমান আছেন বিএনপির ক্ষমতা জিয়ার পরিবারের মধ্যে ধরে রাখতে। যদি বেগম জিয়ার বিকল্প কাউকে খুঁজতে হয় তবে তাকে অবশ্যই রাজনীতি সচেতন ব্যক্তি হতে হবে। আমি মনে করি জোবায়দা রহমান সেখানে যোগ্য নয়।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বেগম খালেদা জিয়া যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন পর্যন্ত তিনিই দলের প্রধান হিসেবে থাকবেন- এটা দলের সকল স্তরের নেতাদের প্রত্যাশা এবং একমাত্র চাওয়া। সংগঠনে তার শূন্যতা অনুভূত হলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান হিসেবে তারেক রহমান নেতৃত্ব দিতেই পারেন। কিন্তু মায়ের স্থলে বউকে আনার চিন্তা সমীচীন নয়।

এদিকে তারেক রহমানের এমন সিদ্ধান্তের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছেন দলের অনেকেই। বিরোধী অবস্থান থেকে মতামত দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সুকোমল বড়ুয়া। তিনি বলেন, আমি মনে করি, কাউন্সিলের আগে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি প্রাধান্য দেয়া উচিত। তার মুক্তির আগে কাউন্সিল করা উচিত হবে না বলে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি। আর জোবায়দা রহমানকে ভাবাটাও অযৌক্তিক। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির পর তারপর দলীয় নেতৃত্ব পরিবর্তনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে, কেননা তার যে দীর্ঘ রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা সেটা কাজে লাগানো উচিত।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি