মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » নতুন জোটের চেষ্টায় মির্জা ফখরুল, তারেকের ‘চওড়া হাসি’!



নতুন জোটের চেষ্টায় মির্জা ফখরুল, তারেকের ‘চওড়া হাসি’!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.07.2021

খালেদাপন্থী হওয়ায় তারেক রহমানের কাছে সেভাবে গ্রহণযোগ্যতা নেই বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের। আর যেটুকুও বা ছিলো, তা শেষ হয়ে গেছে বিএনপি নেত্রীকে টিকা গ্রহণের প্ররোচনা দিয়ে। এখন তাই ফখরুল ভিন্ন পথ খুঁজছেন। নিজের ভবিষ্যৎ অন্ধকার জেনে চেষ্টায় আছেন নতুন জোট গঠনের। ইতোমধ্যে তিনি অনেকদূর অগ্রসরও হয়েছেন বলে একাধিক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। আর এ খবর জেনে ‘চওড়া হাসি’ হাসছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বলছেন, রাজনীতি কিংবা জোটগঠন কি এতোই সোজা? যদি তাই-ই হতো, তবে সবাই জোট গঠন করতো। বনে যেতো বাঘা রাজনীতিবিদ।

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, সামনেই বিএনপির জাতীয় কাউন্সিল। সে লক্ষ্যে খালেদার ‘স্নেহভাজন’ মির্জা ফখরুল পুনরায় মহাসচিব পদে আসীন হতে বেশ কিছুদিন ধরে তারেক রহমানের প্রতি আনুগত্য প্রদর্শন করে আসছিলেন। ভেবেছিলেন, বিএনপি নেত্রী বর্তমানে রাজনীতিতে নেই। তারেকই সব দেখভাল করছেন। তাই তার মন জয় করতে পারলেই ‘মহাসচিব’ পদ নিশ্চিত। বিষয়টি বুঝতে পেরে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ও তারেকের ‘ডান হাত’ খ্যাত রুহুল কবির রিজভী আহমেদ নজর রাখে মির্জা ফখরুলের উপর। পরে বেরিয়ে আসে থলের বিড়াল। তিনি জানতে পারেন, ফখরুল মুখে মুখে তারেক রহমানের কথা বললেও আসলে তার অন্তরে বাস করছেন খালেদা জিয়া। শুধু তাই নয়, তিনি তারেকের সমস্ত পরিকল্পনাও খালেদার কাছে ফাঁস করছেন অবলীলায়। অর্থাৎ তিনি বিএনপি নেত্রীর গুপ্তচর।

এ খবর জানার পর থেকে ফখরুলের উপর ভীষণভাবে ক্ষেপে যান তারেক রহমান। কিন্তু সেটি প্রকাশ না করে বরং ঘাপটি মেরে থাকেন। দেখতে থাকেন তিনি কি করেন আর এর শেষই বা কোথায়? পরবর্তীতে এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে দেখেন, ফখরুল তাকে দলের ‘চেয়ারম্যান’ বলে সম্বোধন করছেন। এতে তার সন্দেহ আরও গাড় হয় এবং তিনি ফখরুলের সঙ্গে এক প্রকার সব রকমের যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। বিষয়টি অনুধাবন করতে পেরে ফখরুল পুনরায় বিএনপি নেত্রীর ছায়াতলে ফিরে তাকে নানা ধরণের পরামর্শ দিতে থাকেন। পাশাপাশি চেষ্টায় থাকেন নিজের একটা জোট গঠনের। যেখানেই তিনিই হবেন সব। তার কথাই হবে শেষ কথা।

এর মধ্যেই খালেদা সিদ্ধান্ত নেন টিকা গ্রহণের। বিষয়টি জানতে পেরে ফখরুল সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা পেয়ে যান তারেক এবং ঘোষণা দেন তাকে দেখে নেওয়ার। এরপর থেকেই ফখরুল মূলত উঠেপড়ে লেগেছেন নতুন জোট গঠনের। ইতিমধ্যে তিনি কয়েকটি বাম দল, জেএসডির আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্য, এলডিপিসহ গণফোরামের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গেও আলাপ সেরেছেন বলে জানা গেছে।

তবে এই আলাপ ‘ফলপ্রসূ’ হবে না উল্লেখ করে লন্ডনের কিংস্টনভিত্তিক একটি সূত্র বলছে, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এখন যা-ই করুক না কেন, তাতে কোন লাভ হবে না। কারণ, তিনি হয়তো ভুলে গেছেন, যাদের সঙ্গেই সখ্যতা গড়ার চেষ্টা তার, তারা সবাই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে তারেক রহমানের ‘কাছের মানুষ’। বেশি চালাকি করতে গেলে যে গলায় দড়ি পড়ে, তা এখন ফখরুলকে দেখেই বোঝা যায়। কারণ, এখন তার আম ও ছালা উভয়ই যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি