মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১



বিএনপির স্বৈরাচারী আচরণে ২০-দলীয় জোট ছাড়লো জমিয়ত


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.07.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটের শরিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম জোট ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে। বুধবার বিকেলে রাজধানীর পুরানা পল্টনে জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ২০-দলীয় জোট ছাড়ার ঘোষণা দেয়। জানা গেছে, গত নির্বাচনের পর থেকেই জোট বলতে কিছুর অস্তিত্ব নেই। শুধু কাগজে-কলমে ২০-দলীয় জোটের অস্তিত্ব আছে। রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে সব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বিএনপি, জোটের অন্য নেতাদের এসব বিষয়ে কিছুই জানানো হচ্ছে না। বিএনপির একক সিদ্ধান্ত নেওয়ার এরকম স্বৈরাচারী মনোভাবের কারণে জোট ছাড়ল জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম।

পুরানা পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জমিয়তের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বাহাউদ্দিন জাকারিয়া বলেন, ‘আজ থেকে জমিয়ত জোটের কোনো কার্যক্রমে সক্রিয় থাকবে না।’

জোট ছাড়ার কারণ প্রসঙ্গে মাওলানা জাকারিয়া বলেন, জোটে শরিক দলের যথাযথ মূল্যায়ন না হওয়া আমাদের জোট ছাড়ার মূল কারণ। সম্প্রতি শরিকদের সঙ্গে পরামর্শ না করেই তিনটি আসনের উপনির্বাচন এককভাবে বর্জন করে বিএনপি। ২০-দলীয় জোট একসাথে গত সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছে। সেই নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিএনপির নেতারা ঠিকই সংসদে যাচ্ছেন কিন্তু এখন উপনির্বাচন বর্জনের সিদ্ধান্ত কেন তা আমাদের বোধগম্য নয়। তার চেয়ে বড় কথা নির্বাচনে অংশ নেওয়া না নেওয়া নিয়ে বিএনপি একক সিদ্ধান্তে বর্জন করেছে। শরীকদের সাথে যদি কোন আলোচনার দরকারই না হয় তাহলে জোটে আমাদের কাজ কি? যে জোটে সব সিদ্ধান্ত বিএনপি একাই নেবে, শরীকদের কোন ভূমিকাই থাকবে না সেই জোটে থাকার কোন মানে হয় না।

মাওলানা জাকারিয়া বলেন, সম্প্রতি বিএনপির মহাসচিব শরিয়াহ আইনে বিশ্বাসী না হওয়ার বক্তব্য দিয়েছেন, আলেম-ওলামাদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ করেনি বিএনপি। নরেন্দ্র মোদির আগমনের পর এত নেতা কর্মী গ্রেপ্তার হল, মৃত্যু হল কিন্তু বিএনপি এসব নিয়ে কোন কর্মসূচি দেয়নি। জমিয়তের মহাসচিব নূর হোসেন কাসেমীর মৃত্যুতে বিএনপির পক্ষ থেকে সমবেদনা না জানানোয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছে।

সূত্র জানায়, ২০-দলীয় জোট অনেক দিন ধরেই কাগুজে জোটে পরিণত হয়েছে। বিএনপি যেমন রাজনৈতিক দল হিসেবে ব্যর্থ, এই জোটটিও ব্যর্থ। জোটের বড় দল বিএনপি, সে হিসেবে জোটের সিদ্ধান্ত গ্রহণে তাদের বড় ভূমিকা থাকবে সেটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বিএনপির মত জোটেও সকল সিদ্ধান্ত নিচ্ছিলেন তারেক রহমান। তারেকের স্বৈরাচারী সিদ্ধান্তের ফলে জোটের শরীক দলসমূহে ক্ষোভ বাড়ছে। অচিরেই আরও কয়েকটি দল ২০-দলীয় জোট ছাড়ার ঘোষণা দেবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে।

 



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি