মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » খালেদা-তারেকের বিরোধ মেটাতে সক্রিয় রিজভী, বাধা ফখরুলের



খালেদা-তারেকের বিরোধ মেটাতে সক্রিয় রিজভী, বাধা ফখরুলের


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
14.07.2021

নিউজ ডেস্ক: দীর্ঘদিন ধরে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মধ্যকার বিরোধ নতুন আকার ধারন করেছে সম্পত্তি নিয়ে। মা-ছেলের এই বিরোধ মেটাতে অসুস্থ রুহুল কবির রিজভী আবার সক্রিয় হয়ে কাজ শুরু করেছেন বলে নিশ্চিত করেছে বিএনপির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র। কিন্তু বাধা দিচ্ছেন ফখরুল।

সূত্রটির জানায়, পারিবারিক কোনো বিষয়ে না নাক গলাতে চান না বিএনপির ভদ্রলোক খ্যাত মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। অন্যকেও পারিবারিক বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে দিতে চান না- বিশেষ করে জিয়া পরিবারের বিষয়ে। কেননা বেগম জিয়া পরিবারের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে বেদনার স্মৃতি রয়েছে তার। তাই রুহুল কবীর রিজভীকে মা-ছেলের বিষয়ে মাথা ঘামাতে নিষেধ করেছেন ফখরুল।

সূত্রটি আরও জানায়, রিজভীকে উদ্দেশ্য কর ফখরুল বলেছেন- সম্পত্তি নিয়ে মা-ছেলের এই নোংরা দ্বন্দ্বে অসুস্থ শরীর নিয়ে রিজভীর সমাধানের চেষ্টা করা ঠিক হবে না। উল্টো তিনি আবার অসুস্থ হয়ে পরবেন।

বিষয়টি নিয়ে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে ফোন করে বুঝিয়েছেন বলে জানায় সূত্রটি।

জানা যায়, তারেক রহমানের পছন্দের লোক দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। সিনিয়র নেতাদের মধ্যে তার কথায় শোনেন তারেক। অবশ্য দুয়েকবার তাকে অপমানও করেছেন। তবুও তারেককে ব্যক্তিগতভাবে বেশ পছন্দ করেন রিজভী। তাই মা-ছেলের দ্বন্দ্ব মেটানোর শেষ চেষ্টা করতে চান তিনি। বিষয়টি নিয়ে দলের সিনিয়র কয়েকজন নেতা কর্মীর সাথে কথাও বলেছেন তিনি।

মির্জা ফখরুলের বাধা উপেক্ষা করে মা-ছেলের বিরোধ মিটিয়ে দলের রাজনীতিতে সুস্থ্য পরিবেশ আনতে রিজভী অনড় বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এদিকে টানা কয়েকমাস শারীরিক অসুস্থতায় চিকিৎসাধীন থাকার পর সোমবার (১২ জুলাই) ছাত্রদলের এক নেতার কন্যার বিয়ের উপহার দিতে নিজ বাসা ছেড়ে বের হন তিনি।

উল্লেখ্য, গত ১৬ মার্চ করোনা আক্রান্ত হন রুহুল কবির রিজভী। এরপরই ১৭ মার্চ তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। গত ১ এপ্রিল ফের হঠাৎ করেই রিজভীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে এবং অক্সিজেন লেভেল কমে গেলে তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছিল। শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় দীর্ঘ প্রায় দুই মাস পর ৯ মে তাকে হাসপাতাল থেকে রিলিজ দেওয়া হয়। এরপর থেকে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছিলেন রিজভী।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি