মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১



যে কারণে ঐক্যফ্রন্ট থেকে সরছে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
15.07.2021

নিউজ ডেস্ক : বিএনপি নেতা হানিফ এবং শাহজাহান পদত্যাগ করার পর থেকে রাজনৈতিক অঙ্গনে গুঞ্জন উঠেছে ঐক্যফ্রন্ট থেকে সরে যাচ্ছে বিএনপি। মূলত ঐক্যফ্রন্টের কারণেই পদত্যাগ করেছিলেন বিএনপির এই দুই নেতা। ফলে বাস্তবিক অর্থে কোনো অস্তিত্ব না থাকা ঐক্যফ্রন্টকে শেষমেশ বিদায় জানাচ্ছে বিএনপি।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট কখনোই কাজের কোনো সংগঠন ছিলো না। নাম মাত্র একটি সংগঠন। যেটার উদ্দেশ্য ছিলো স্বার্থ হাসিলের। আর তাই স্বার্থ হাসিল না হওয়ায় সংগঠনটি বর্তমানে বিলুপ্তির পথে। ফলে বিএনপি এই সংগঠন থেকে সরে গলে অবাক করা কোনো বিষয় বলে বিবেচিত হবে না।

এছাড়া, বিএনপি দুই ধরনের জোটি নিয়ে এক রকম অস্বস্তিতে পড়েছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও দলটির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা। এছাড়া কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে নতুনভাবে অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে গণফোরামে। তাদের মতে, নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সামনে রেখে নেতাকর্মীদের মধ্যে যে প্রত্যাশার সৃষ্টি হয়েছিল কিন্তু রাজনৈতিক অপরিপক্বতার কারণে সেই কৌশল ব্যর্থ হতে চলেছে।

বিশেষ করে ফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের ভূমিকাকে সন্দেহের চোখে দেখছেন বিএনপির অনেক নেতাই। নির্বাচনে বিএনপিকে শেষ পর্যন্ত রাখা এবং গণফোরামের দুই এমপির শপথ নেয়ার ক্ষেত্রে ড. কামাল হোসেনের বিশেষ ভূমিকা ছিল কিনা- তা নিয়েও সন্দেহ আছে অনেকের। তার ভূমিকায় শুধু বিএনপি নয়, গণফোরামের মধ্যেও সৃষ্টি হয়েছে অস্থিরতা। শেষ পর্যন্ত ঐক্যফ্রন্ট টিকবে কিনা- তা নিয়েও সংশয় সৃষ্টি হয়েছে নেতা-কর্মীদের মনে।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপি কিছুটা বিব্রত। ড. কামালের মধ্যে ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে অনীহা দেখা যায়। বিএনপি এবং ড. কামালের মতপার্থক্য নিয়ে ঐক্যফ্রন্টে অস্বস্তি সৃষ্টি হয়েছে।

জামায়াত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির আর সম্পর্ক রাখা উচিত হবে না। দলটি ভেঙে যাচ্ছে। তাই বিএনপির উচিত হবে স্বাধীনতাবিরোধী এ দলটির সঙ্গ ত্যাগ করা। কারণ জামায়াতের কারণে দলটিকে দেশে-বিদেশে বেশ বেকায়দায় পড়তে হয়েছে।

তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে দল অস্বস্তিতে রয়েছে তা মানতে নারাজ বিএনপির নীতিনির্ধারকরা। তারা মনে করেন, ঐক্যফ্রন্ট বিএনপিকে ছেড়ে দিলেও বিএনপির কিছু আসে-যায় না। কারণ বিএনপি জিয়ার আদর্শে লালিত।

এদিকে বিএনপি নেতাদের এমন দাবিকে অযৌক্তিক বলে উড়িয়ে দিয়ে অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ বলেন, যদি কেউ চলে গেলে কোনো ক্ষতিই না হতো, তবে বিএনপি জোট করতো না। বিএনপির এমন জোটই প্রমাণ করে তারা ক্ষমতায় আসার জন্য জোট বদ্ধ হয়েছিলেন। সমন্বয়হীনতার অভাবে যখন বিএনপি ছেড়ে সবাই চলে যাচ্ছে, তখন সাধারণ মানুষের ভুলিয়ে রাখতে মির্জা ফখরুলরা এমন কথা বলছেন। আসল কথা হচ্ছে, ঐক্যফ্রন্টের ভাঙ্গন অবধারিত হয়ে পড়েছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি