মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 4 » ন্যূনতম ইস্যুতে বিএনপি`র নতুন জোট আসছে



ন্যূনতম ইস্যুতে বিএনপি`র নতুন জোট আসছে


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
20.07.2021

নিউজ ডেস্ক: ঈদের পরপরই বিএনপি`র একটি নতুন জোট আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে। ২০ দলীয় জোট এবং জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পর এবার বিএনপি একটি ভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক জোট করতে যাচ্ছে। বিএনপি`র দায়িত্বশীল একজন নেতা বলছেন, এটি কোনো নির্বাচনী জোট নয় বা আদর্শিক জোট নয় ন্যূনতম ইস্যুভিত্তিক জোট। তবে এই জোটে কারা কারা থাকবে তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। একটি বিষয় নিশ্চিত এই জোটে জামায়াতসহ ২০ দলীয় জোটের যে ইসলামপছন্দ দলগুলো রয়েছে তারা থাকবে না এবং ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে গণফোরাম থাকবে না। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে যে, বিএনপি ছাড়াও এই জোটে থাকবে এলডিপি, নাগরিক ঐক্য, জেএসডি, কল্যাণ পার্টি, ২০ দল থেকে বেরিয়ে যাওয়া বিজেপিসহ আরও কিছু রাজনৈতিক দল। বলা হচ্ছে যে, ন্যূনতম কিছু কর্মসূচি নিয়েই এই জোট করা হবে। এখন পর্যন্ত এই জোটের ৭টি ইস্যু নির্ধারিত করা হয়েছে। এই ইস্যুগুলোর মধ্যে রয়েছে,

১. গরীব মানুষের সীমাহীন দুর্ভোগ, অভাব-অনটন এবং দারিদ্রতা। এই করোনাকালীন সময়ে গরিব মানুষের পাশে দাঁড়াতে সরকারের ব্যর্থতা।

২. করোনা মোকাবেলায় সরকারের ব্যর্থতা এবং এই ব্যর্থতার কারণে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ এবং ব্যর্থতার জন্য দায়ী সংশ্লিষ্ট সকলের বিচার।

৩. টিকা প্রদানে অনিয়ম স্বেচ্ছাচারিতা এবং এ ব্যাপারে একটি তদন্ত কমিটি গঠন। যারা নিরপেক্ষ তদন্ত করে দেখবে কেন একটি উৎস থেকে টিকা গ্রহণের জন্য উদ্যোগ নেয়া হলো। বিশেষ করে একটি প্রতিষ্ঠানকে লাভবান করার জন্য এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে কিনা সেটি তারা খতিয়ে দেখবে। এ ব্যাপারে এই জোট থেকে বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানানো হবে।

৪. বিভিন্ন ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান দুর্নীতির ব্যাপারে সরকারকে শ্বেত পত্র করতে হবে এবং এই দুর্নীতিবাজদের বিচার করতে হবে। দুর্নীতি বন্ধের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৫. করোনাকালীন সময়ে সমন্বয়হীন, দায়িত্বজ্ঞানহীন যে লকডাউনের প্রজ্ঞাপনগুলো সেগুলো বাতিল করতে হবে। লকডাউনের বদলে গণটিকা কর্মসূচির মাধ্যমে দেশকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে আসার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

৬. রাজনৈতিক হয়রানির কারণে যে সমস্ত রাজনৈতিক নেতাকর্মীকে আটক, গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদেরকে মুক্ত করতে হবে এবং হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

৭. জাতীয় পরিচয় পত্র নির্বাচন কমিশনে ফিরিয়ে আনতে হবে এবং বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে হঠিয়ে একটি নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে।

এছাড়াও এই দাবিনামার মধ্যে আরও কিছু বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে। বিশেষ করে খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তার প্যারোলের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। তবে বিএনপি`র নেতারা বলছেন যে, তারা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সাথে এই ইস্যুগুলো নিয়ে কথা বলছেন। রাজনৈতিক দলগুলো এসব ইস্যুগুলোর ব্যাপারে তাদের মতামত দিচ্ছেন এবং সংযোজন বিয়োজনের পর একটি আনুষ্ঠানিক ঘোষণার মাধ্যমে এটি চূড়ান্ত করা হবে। বিএনপি চাইছে এই দাবিদাওয়াগুলোকে সরকার পতনের আন্দোলনের দিকে নিয়ে যেতে। কিন্তু এখানে শরিক যে দলগুলো আছে তারা মনে করছে যে, আগে জনগণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোকে সামনে নিয়ে এসে আন্দোলন করতে হবে এবং এই আন্দোলনের একটি পর্যায়ে সরকার পতনের আন্দোলনে নিয়ে যেতে হবে। এ ধরনের জোট করোনার মধ্যে আদৌ কার্যকর হবে কিনা বা কতটুকু কার্যকর হবে বা শেষ পর্যন্ত এ ধরনের জোট আদৌ আলোর মুখ দেখবে কিনা তা নিয়ে বিএনপি`র মধ্যেই সংশয় রয়েছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি