মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১



খালেদা জিয়ার মৃত্যু হলে বেঁচে যান তারেক : আমীর খসরু


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
28.07.2021

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, খালেদা জিয়ার সত্যিকারের মুক্তি আসবে আন্দোলনের মাধ্যমে। রাজপথেই খালেদা জিয়ার মুক্তি নিশ্চিত হতে পারে। আন্দোলনের জন্য তারেক রহমানের নির্দেশনার অপেক্ষাতে থাকতে থাকতে দলে মরিচা ধরে গেছে। দলে ভাঙন ধরেছে। তারেক রহমান দলীয় ক্ষমতার একচ্ছত্র অধিপতি হতেই নিজের মায়ের মুক্তির জন্য কিছু করতে চাইছেন না। আমি বারবার তারেক রহমানের সাথে যোগাযোগ করেছি কিন্তু তার কোনো সাড়া পাইনি। আমার মনে হচ্ছে দলে নিজের ক্ষমতার পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের জন্য নিজের মায়ের মৃত্যু চাইছেন তারেক রহমান। কারণ খালেদা জিয়া মারা গেলেই দলের পরিবারতান্ত্রিক নিয়ম অনুসারে তারেক রহমান হবেন বিএনপির প্রধান।

খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী এসব কথা বলেন।

আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী আরো বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আমাদের আরো সংগঠিত হতে হবে এবং কর্মসূচি দিতে হবে। আমাদের এমন কর্মসূচি দিতে হবে, যাতে খালেদা জিয়াকে আমরা মুক্ত করতে পারি। তারেক রহমানের ঢিলেমিতে দলের কেউই সন্তুষ্ট নয়। তিনি নিজের মায়ের মৃত্যুর মাধ্যমে ক্ষমতায় যাবার বাসনায় উন্মুখ হয়ে আছে বলেও সমালোচনা চলছে। জেলে যতবার ম্যাডাম জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছি ততবার তিনি তারেক রহমানের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আর তারেক রহমানের নীরবতা নিয়ে অবাক হয়েছেন।

এদিকে আমীর খসরুর বক্তব্য প্রসঙ্গে তারেকপন্থী এক নেতা বলেন, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী নিজে একজন দালাল। আমাদের মনে হয় তিনি তলে তলে আওয়ামী লীগের সঙ্গে আঁতাত করছেন। তাকে তো কখনো কোনো আন্দোলনের নেতৃত্ব দিতে দেখলাম না। আসল কথা হচ্ছে আমীর খসরুর মতো নেতারা যতদিন দলে থাকবেন ততদিন খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব না। তবে আমি একটি বিষয়ে একমত যে, আমাদের দলে এখন শৃঙ্খলা নেই। দলের নেতা লন্ডনে বসবাস করছেন বলেই নেতৃত্বের সংকট সৃষ্টি হয়েছে বলেই আমার মনে হয়। তবে এটা সাময়িক। অচিরেই বিএনপি ঘুরে দাঁড়াবে বলেই আমার বিশ্বাস।

অপরদিকে খালেদাপন্থী স্থায়ী কমিটির এক সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর বক্তব্য প্রসঙ্গে বলেন, খসরু সাহেব অযৌক্তিক কিছু বলছেন বলে মনে হচ্ছে না। বিগত ১৪ বছর যাবত শুধু আন্দোলন হবে হবে, এমন কথা শুনছি, অনেকবার আন্দোলনের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। তবে তারেক রহমান আন্দোলনের জন্য কোনো দিক নির্দেশনা দিতে পারেননি। নিজের মায়ের মুক্তির জন্য তার ভূমিকা নিয়ে সবমহলে প্রশ্ন উঠেছে। তারেক রহমানের জন্য উল্টো দলে ভাঙন সৃষ্টি হচ্ছে। ‘খালেদা মুক্তি’ আন্দোলনে না যাওয়ার একমাত্র বাধা তারেক রহমান। নিজের মায়ের লাশ চাইছেন তিনি। দলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য তিনি ইচ্ছে করে সময়ক্ষেপণ করছেন বলেই আমার মনে হচ্ছে। দলের সিনিয়ররাও এমনটাই মনে করছেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি