মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১



বিধিনিষেধের মধ্যে মিছিল করে দলেই সমালোচিত রিজভী


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
29.07.2021

নিউজ ডেস্ক : সমগ্র বিশ্ব করোনা মহামারিতে আক্রান্ত। জীবন বাঁচাতে লকডাউন দেয় সরকার। আর এই লকডাউন উপেক্ষা করে অযথা গা ঘেঁষাঘেঁষি করে বুধবার ২৯ জুলাই ভোর ছয়টায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল। বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নিয়েছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তবে অনুমোদন না নিয়েই এমন স্পর্শকাতর সময় স্বেচ্ছাসেবক দলের ঝটিকা মিছিলে অংশ নেয়ায় আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর রোষানলে পড়েছেন রিজভীসহ স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারা।

রিজভীর মতো অন্য আর কোনো নেতা পরবর্তীতে করোনার মধ্যে বিএনপিকে জড়িয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করার পাঁয়তারা করলে আগামীতে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে মন্তব্য করেছেন খসরু। পাশাপাশি আগামীতে চেইন অব কমান্ড ভাঙার চেষ্টা করা হলে দায়ী নেতাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

স্বেচ্ছাসেবক দলের হঠকারী সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, হঠাৎ করে সাত সকালে মানুষ ঘুম থেকে ওঠার আগে মিছিল করার চেয়ে রমনা পার্কে জগিং করা অনেক ভালো। কোনো ইস্যু না পেয়ে আগ বাগিয়ে মিছিল-মিটিং করে বিএনপি নিজেদের বাম দলগুলোর কাতারে নিয়ে যেতে চায় না। ২০-৩০ জন নিয়ে মিছিল করে কারও কিছু করা যাবে না।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি সকল ধরণের বিতর্ক এড়িয়ে আদর্শ রাজনৈতিক দল হতে চায়। পান থেকে চুন খসলেই হৈচৈ করার মতো পরিবেশ এখনও তৈরি হয়নি। সামনে জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে, তাই লন্ডনের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে অনেকেই হঠকারী সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। রিজভীর মতো সিনিয়র নেতাদের নতুন করে ভুল করা মানায় না। শুধু মিছিল-মিটিং করলেই বিএনপির উদ্দেশ্য পূরণ হবে না, আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। অথচ আন্দোলনের মাঠে এসব উৎসাহী নেতাদের খুঁজে পাওয়া যায় না। আন্দোলনের নাম শুনলেই ব্যবসায়িক ব্যস্ততা, সুখ-বিসুখ, বিদেশ যাত্রার কথা মনে পড়ে বিএনপি নেতাদের। নেতাদের আরও প্রফেশনাল হওয়ারও আহ্বান জানান তিনি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি