রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১



দলীয় কার্যক্রমে অনুপস্থিত রিজভী, নেপথ্যে কি!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
30.07.2021

ডেস্ক রিপোর্ট: করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠলেও গৃহবন্দী হয়ে আছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী। দলীয় কোন কার্যক্রমে তাকে দেখা যাচ্ছে না। বিএনপি বর্তমানে রাজপথে আন্দোলনে না থাকলেও প্রায় প্রতিদিনই কোন না কোন অনলাইন আলোচনা সভা করছে। কিন্তু এর একটিতেও রিজভীকে দেখা যাচ্ছে না। বিষয়টি রহস্যজনক। দলের ভেতরে বাইরে এ নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। কেউ কেউ বলছেন, মির্জা ফখরুলের সাথে চরম বোঝাপড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। আবার কেউ কেউ জানাচ্ছেন, দলের সাথে সম্পর্ক শেষ করার চিন্তা করছেন বিএনপি। তাহলে কি আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন রিজভী?

দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থা তুলে ধরে শুক্রবার বিকেলে এক ভার্চ্যুয়াল আলোচনায় সভায়ও রিজভীর নিশ্চুপ থাকার প্রসঙ্গ উঠে আসে। বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির উদ্যোগে ‘ব্যক্তি খাত বিকাশে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও মুক্তবাজার অর্থনীতি’ শীর্ষক এ আলোচনা সভায় দলের সব গুরুত্বপূর্ণ নেতা উপস্থিত থাকলেও ছিলেন না রিজভী।

সভায় উপস্থিত স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, রিজভী সাহেব করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠলেও অনেক দিন কোন মিটিংয়ে অংশ নিচ্ছেন না। বিষয়টি নিয়ে কথা উঠেছে। তার মত একটিভ একজন নেতা কেন হঠাৎ নিশ্চুপ সেটা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। কেউ কেউ আশংকা করছেন রিজভী সাহেব দল ত্যাগ করতে পারেন। তারেক সাহেবও বিষয়টি নিয়ে খোঁজ নিতে বলেছেন।

তবে স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বিষয়টি অন্যভাবে বর্ণনা করলেন। তিনি বলেন, আমাদের মহাসচিব মির্জা ফখরুলের সাথে তার রেষারেষি আছে। নানা বিষয়ে রিজভী সাহেব ক্ষুব্ধ। আমি নিশ্চিত জানি না, তবে কেউ কেউ বলছেন, রিজভী সাহেবের নিশ্চুপ থাকা ভালো কিছুর ইঙ্গিত নয়। মির্জা ফখরুলের সাথে চরম কিছুর একটা প্রস্তুতি নিচ্ছেন হয়ত।

জানতে চাইলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল বলেন, আমি ঠিক জানি না রিজভী সাহেব কেন মিটিংয়ে অংশ নিচ্ছেন না। তিনি এখন সুস্থ। দলের কিছু বিষয়ে তার ক্ষুব্ধতার কথা আমরা সবাই জানি। সেসব নিয়ে তিনি দলীয় ফোরামে আলোচনা করতে পারেন। কিন্তু সেটা না করে বিষয়টি নিয়ে সরকারের একজন মন্ত্রীর সাথে কথা বলেছেন বলে শুনেছি। বিষয়টি আমার কাছে রহস্যজনক মনে হয়েছে। এটা নিয়ে আমাদের নেতা তারেক সাহেবকে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেছি। আশা করছি, খুব দ্রুতই রিজভী সাহেবের নীরবতার কারণ উদঘাটিত হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি