মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 4 » দিন-দুপুরে দুই ট্রাক ইট ছিনতাই করলেন জামায়াত নেতা



দিন-দুপুরে দুই ট্রাক ইট ছিনতাই করলেন জামায়াত নেতা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
01.08.2021

নিউজ ডেস্ক: যশোরের চৌগাছায় ডিবি পুলিশ ও সাংবাদিক পরিচয়ে দিন-দুপুরে দুই ট্রাক ইট ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে জামায়াত নেতা কবির বিন সামাদের বিরুদ্ধে। বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে ওই উপজেলার কমলাপুর মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত কবির বিন সামাদ ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের নবগ্রামের মাওলানা আব্দুস সামাদের ছেলে। তিনি ‘ঠিকানা টিভি’ নামে একটি ফেসবুক পেইজের পরিচালক ও ঝিকরগাছা উপজেলা জামায়াতের নেতা।

জানা গেছে, বুধবার সকাল ১০টার দিকে মানবাধিকার কমিশনের স্টিকার লাগানো দুটি মাইক্রোবাস নিয়ে চৌগাছার কমলাপুর মোড়ের এইচ.এম ব্রিকস নামে একটি ইটভাটায় যান কবির বিন সামাদ। সে সময় তিনি ও তার সঙ্গের লোকজন নিজেদের সাংবাদিক ও ডিবি পুলিশ পরিচয় দিয়ে দুই ট্রাক ইট ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন। ইটভাটার ম্যানেজার সবুজ হোসেন ৯৯৯-এ কল করলে চৌগাছা থানার পুলিশ সদস্যরা ছিনতাই করা ইট উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।

ম্যানেজার সবুজ হোসেন বলেন, কিছু বুঝে ওঠার আগেই কবির বিন সামাদ ও তার লোকজন এসে আমাদের কাছে সাংবাদিক ও ডিবি পুলিশ পরিচয় দেন। কোনো কথা না শুনে তারা দুই ট্রাক ইট নিয়ে চলে যান। তখন আমি ৯৯৯-এ কল করি। পরে পুলিশ এসে ইট উদ্ধার করে। কিছুক্ষণ পরই কবির বিন সামাদকেও থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আমি কবির বিন সামাদকে চিনতাম না। পরে জানতে পারি তিনি জামায়াত নেতা এবং ফেসবুকে কৌতুক আর ইসলামিক বক্তব্য দিয়ে ভিডিও ছাড়েন।

এইচ.এম ব্রিকস নামে ওই ইটভাটার মালিক মো. গোলাম রসুল বলেন, ঘটনার সময় আমি যশোরে ছিলাম। ইট ছিনতাইয়ের খবর পেয়ে দ্রুত চলে আসি। আমার সামনেই জামায়াত নেতা কবির বিন সামাদকে থানায় ডাকা হয়। পরে ওসির সঙ্গে কথা বলে তিনি চলে যান। তারা দিন-দুপুরে প্রভাব খাটিয়ে আমার ভাটা থেকে ইট ছিনতাই করেছেন। আমি আইনি পদক্ষেপ নেব।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত জামায়াত নেতা কবির বিন সামাদের মোবাইলে কল দিলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। তবে ইট ছিনতাইয়ের বিষয়টি স্বীকার করেছেন প্রত্যক্ষদর্শী এক মাদরাসার অধ্যক্ষ।

চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, ইটগুলো থানার হেফাজতে আছে। ৬ আগস্ট দুই পক্ষের থানায় বসার কথা রয়েছে। সেখানে মীমাংসা না হলে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি