রবিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » খসড়া হিসেবে ব্যয়ের চেয়ে আয় বেশি বিএনপির, রুষ্ট তারেক



খসড়া হিসেবে ব্যয়ের চেয়ে আয় বেশি বিএনপির, রুষ্ট তারেক


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
02.08.2021

নিউজ ডেস্ক : নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নিবন্ধনে থাকা রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতিবছর ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আগের পঞ্জিকা বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব দেওয়ার কথা। তবে সময় শেষ হলেও এ বছর এখনো আয়-ব্যয়ের হিসাব ইসিতে জমা দেয়নি বিএনপি। এমনকি হিসাব দেওয়ার সময় বাড়ানোর জন্য কমিশনে বিএনপি লিখিতভাবে আবেদনও করেনি। ইসি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিগত বছরগুলোর তুলনায় ২০১৮ সালের মতো এবারও হিসাবের খাতায় আয় বেড়েছে বিএনপি। নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচন কমিশনে আয়-ব্যয়ের হিসাব দেওয়ার আগে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে হিসাব দেখাতে হয় বিএনপির। আর এ বছরের খসড়া হিসাব তারেক রহমানকে দেখালে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের উপরে খেপেছেন তারেক রহমান। লন্ডন বিএনপি নেতা আব্দুল মালিকের ঘনিষ্ঠ একজন নেতার বরাতে এই তথ্যের সত্যতা পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই নেতা বলেন, বিদেশ থেকে বিএনপি নেতাদের কাছে গরীবদের জন্য ত্রাণ আসলেও তা দলের মধ্যে হজম করে ফেলা, নির্বাচনে বাণিজ্য, দলীয় কর্মসূচি কেন্দ্রিক চাঁদা সংগ্রহসহ বিভিন্ন ইস্যু দলে ও দলের বাইরে নানা সমালোচনা রয়েছে বিএনপির। এমন প্রেক্ষাপটে দলের আয় বাড়ার বিষয়টি ইতিবাচক বার্তা দেয় না। বাণিজ্যসহ সবগুলো অভিযোগের সত্যতা প্রমাণ হয়ে যায়। ফলে এ নিয়ে তৃণমূল বিএনপিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তারেক রহমান।

তিনি আরও বলেন, ২০১৮ সালে দলের স্থায়ী কমিটি কর্তৃক আয়-ব্যয় হিসাব জমা দেয়ার আগে প্রতিবেদন সম্পর্কে কোনো ধারণাই তারেক রহমানকে দেয়নি সদস্যরা। এমনকি কিভাবে আয়-ব্যয় হিসাব উপস্থাপন করতে হবে- সে সম্পর্কে তারেক রহমানের সঙ্গে কোনো পরামর্শও করেনি স্থায়ী কমিটি। যার কারণে সে বছরের হিসাবে ব্যয় বেশি দেখায় বিএনপি। এবারও এমন কিছু হতে পারে জেনেই তারেক রহমান আয়-ব্যয়ের হিসাব জানতে চায়। তবে দুঃখের বিষয় এবারো হিসাব অনুযায়ী ব্যয়ের চেয়ে আয় বেশি বিএনপির।

একটি সূত্র বলছে, এ ইস্যুতে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের জবাবদিহিতার সম্মুখীন করা হবে বলে জানা গেছে। এরইমধ্যে নির্বাচন কমিশনে আয়-ব্যয় বিবরণীর খসড়া হিসাব তৈরি করা নেতা বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে টেলিফোনে নানা অপ্রীতিকর কথা শুনিয়েছেন তারেক রহমান। এখন স্থায়ী কমিটির সদস্যদের পালা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি