বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » ফের সক্রিয় হবার ষড়যন্ত্র করছে জামায়াতে ইসলাম



ফের সক্রিয় হবার ষড়যন্ত্র করছে জামায়াতে ইসলাম


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
08.08.2021

নিউজ ডেস্ক : পাকপন্থী উগ্রবাদী জামায়াত-শিবির রাজনৈতিক মাঠে নিষ্ক্রিয় থাকলেও গোপনে সক্রিয় রয়েছে। তারা গোপনে সরকার পতনের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিএনপি প্রকাশ্যে জামায়াত-শিবিরের থেকে দূরত্ব রেখে চললেও গোপনে একই পথে এগিয়ে যাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। বিএনপির সরকার পতন এজেন্ডা বাস্তবায়নে আড়াল থেকে কাজ করছে তারা।

এমন প্রেক্ষাপটে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন বানচালের উদ্দেশ্যে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড ঘটানোর পরিকল্পনার অভিযোগে জামায়াতের ২২ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৬ জুলাই) রাতে চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও থানার অদূরপাড়া বানিয়ারপুল মাজার গেট ৪ নম্বর রোডের একটি ভবনে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পরে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) আসামিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তথ্যমতে, মো. ইসহাক নামের একজন শিবির নেতার বাড়িতে সরকার পতনের ষড়যন্ত্রে গোপন বৈঠক করছিলেন জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। গোপন সংবাদ পেয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে ওই ২২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে সরকারবিরোধী লিফলেট ও সাংগঠনিক বইপত্র জব্দ করা হয়েছে।

চান্দগাঁও থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মো. ইসহাক নতুন করে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের সংগঠিত করছিলেন। তিনি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একাধিক নামে গ্রুপ খুলে যোগাযোগ করতেন। ওইসব গ্রুপের আলাপচারিতায় সরকারবিরোধী বিভিন্ন ধরনের উসকানিমূলক বক্তব্য পাওয়া গেছে। তাদের বিরুদ্ধে চারঘাট থানায় মামলা হয়েছে।

এমন বাস্তবতা বিশ্লেষণ করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের একজন সাবেক অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে জামায়াত-শিবির নিষ্ক্রিয় অবস্থায় পড়ে আছে বলেই জানতাম। এমনকি বিএনপিও তাদের দূরে রেখেছে এবং রাজনৈতিক মহলে জামায়াত বিএনপি বিরোধী অবস্থানে নিজেদের পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে। বিষয়টি সরল চোখে সহজ মনে হলেও এখন তা স্বাভাবিক করে দেখা যাচ্ছে না। কেননা, বিএনপি ও জামায়াতের পরস্পর বিরোধী অবস্থান বা উভয় দল পরস্পরকে এড়িয়ে চলার যে দৃশ্য আমরা দেখছি তা মূলত পাতানো খেলা। বিএনপি মাঠে সক্রিয় আর জামায়াত-শিবির আড়ালে। কিন্তু তাদের উদ্দেশ্য এক। নাটক সাজিয়ে তারা সাধারণ মানুষের চোখে ধুলো দিয়ে ফায়দা লুটতে তৎপর। এ বিষয়ে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের আরও সক্রিয় থাকা উচিৎ। তারা তাদের লক্ষ্যে পৌঁছাতে বিধ্বংসীমূলক তৎপরতা চালাতে পারে- এটা এখন দিনের আলোর মতো পরিষ্কার।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি