মঙ্গলবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » তারেক রহমানকে খুশি করতে পুলিশের উপর বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলা



তারেক রহমানকে খুশি করতে পুলিশের উপর বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
17.08.2021

নিউজ ডেস্ক: জনসমর্থন হারিয়ে বর্তমানে টালমাটাল অবস্থায় বিএনপি। এমতাবস্থায় তারেক রহমানের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ বাধিয়ে নিজেদের শক্তি জানান দিতে চাইছে সদ্য গঠিত ঢাকা মহানগর বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটি। মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে জিয়ার মাজারে ফুল দিতে এসে ইচ্ছাকৃতভাবে পুলিশকে লক্ষ্য করে গালমন্দ এবং ইট পাটকেল ছুঁড়তে শুরু করে নবগঠিত কমিটির নেতাকর্মীরা। কয়েক দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিএনপির উশৃঙ্খল নেতাকর্মীদের উপর টিয়ার-শেল ও রাবার বুলেট ছুড়েছে পুলিশ।

জানা যায়, তারেক রহমানের সন্তুষ্টি অর্জনে ঢাকা মহানগর বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটির প্রথম সভায় সিদ্ধান্ত হয়, ইচ্ছাকৃতভাবে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ বাধিয়ে পুলিশকে সরকারের পেটোয়া বাহিনী হিসেবে প্রচার করা এবং আত্মরক্ষার্থে পুলিশ যখন নেতাকর্মীদের উপর হামলা করবে তখন ভিডিও ধারণ করে জনগণকে বোঝানো যে, সরকার বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর নির্যাতন করছে। আর এটাই হবে নবগঠিত কমিটির প্রথম কর্মসূচি।

সেই মোতাবেক মঙ্গলবার জিয়ার মাজারে গিয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে শুরু করে দলটির নেতাকর্মীরা। এক পর্যায়ে গণমাধ্যমের কাছে অসত্য বক্তব্য দিতে শোনা যায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত বিএনপির ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানকে। তিনি বলেন, পুলিশ আমাদের উপর বৃষ্টির মতো গুলি ছুঁড়েছে। হাজার হাজার নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে। তিনি ক্যামেরার সামনে ঘুরে দাঁড়িয়ে দেখান, গুলি লেগে তার পাঞ্জাবীর কয়েক জায়গায় ছিদ্র হয়ে গেছে; কিন্তু তার শরীরে কোন ক্ষতের সৃষ্টি হয়নি।

সরেজমিনে দেখা যায়, জিয়ার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাতে সকাল ৯টা থেকে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা ছোট ছোট জটলা বেঁধে চন্দ্রিমা উদ্যানে আসা শুরু করেন। সকাল ১০টা ২০ মিনিটের দিকে বেশ কিছু মিছিল ও মোটর সাইকেলের শোডাউন এসে থামে চন্দ্রিমা উদ্যানের গেটে। এই সময় পুলিশ নেতাকর্মীদের ভেতরে প্রবেশে বাধা দেয়। পুলিশ সদস্যরা বলেন, করোনার সময় জটলা করা যাবে না। ভেতরে ঢোকার অনুমতি নেই। তার কিছুক্ষণ পরই পেছন থেকে কিছু নেতাকর্মী পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়তে শুরু করেন। পুলিশও তখন লাঠিচার্জ শুরু করে। প্রায় আধা ঘণ্টা এই সংঘর্ষ চলে। এ সময় বিএনপি নেতা কর্মীদের গাড়ি ভাঙচুর করতে দেখা যায়। তারা পরিকল্পনা কমিশনের একজন সচিবের সরকারি গাড়ি ভাঙচুর করে। তাদের দমাতে মারমুখী হয় পুলিশও।

শেরে-ই-বাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানে আলম মুন্সি বলেন, বিএনপির একটা প্রোগ্রামে হঠাৎ ঝামেলা শুরু হয়েছে। আমরা আগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছি।

জানা যায়, তারেক রহমানকে খুশি করে দলে নিজেদের গুরুত্ব বাড়ানোর জন্য ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির নবগঠিত আহ্বায়ক কমিটির নেতাকর্মীরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে পুলিশের উপর এ হামলা চালায়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি