বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১



লন্ডন যাত্রা বাতিল হলো খালেদা জিয়ার


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.09.2021

খালেদা জিয়ার

নিউজ ডেস্ক: ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের মহানুভবতায় মুক্তি পাওয়ার পর থেকে গুলশানের বাসায় আরামে দিন কাটাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। মুক্তির আগে পরিবারের পক্ষ থেকে তিনি রাজনীতিতে সক্রিয় হবেন না বললেও ‘চেয়ারপারসনসুলভ’ আচরণে আবির্ভূত হয়েছেন বিএনপি নেত্রী। মির্জা ফখরুল, মাহমুদুর রহমান মান্না, আবদুল আউয়াল মিন্টুদের সঙ্গে করেছেন সৌজন্য সাক্ষাতের আড়ালে দীর্ঘ রাজনৈতিক আলাপন।

সর্বশেষ বেগম জিয়া সরকারের দেয়া শর্ত ভঙ্গ করে তারেককে ‘রাজনৈতিক আইসোলেশন’-এ পাঠিয়ে ফন্দি এঁটেছিলেন বিদেশ যাত্রার। কিন্তু সে আশায় গুড়ে বালি। জানা গেছে, ঢাকা ও লন্ডনের দ্বিমুখী সিদ্ধান্তের কারণে ভেস্তে যেতে বসেছে তার বিদেশ যাত্রা!

নির্ভরযোগ্য একটি সূত্রে জানা গেছে, উন্নত চিকিৎসার আড়ালে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের নিমিত্তে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে লন্ডন পাঠানোর জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে বিএনপি। এ নিয়ে তার পরিবারের পক্ষ থেকে সরকারের বিভিন্ন মহলে দেন-দরবারসহ বিভিন্নভাবে চেষ্টা তদবির চালানো হচ্ছে। দলীয় কেউ কেউ বলছেন, সবকিছু ঠিক থাকলে চলতি মাসের শেষের দিকে, অথবা আগামী মাসের শুরুতেই তাকে লন্ডন পাঠানো হবে।

তবে এটিকে গুঞ্জন আখ্যা দিয়ে খালেদা পরিবারের ঘনিষ্ঠ স্বজনরা বলছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর আবেদন করে এরইমধ্যে সরকারের বিভিন্ন মহলে তা পাঠানো হয়েছে। চলছে তদবিরও। এ লক্ষ্যে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার সহযোগী ফাতেমা মানসিকভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছেন। তবে সহসাই তিনি যেতে পারবেন কিনা, সে বিষয়ে কিছুই জানেন না তারা। তাই চলতি মাসে খালেদার বিদেশ গমনের খবরকে তারা গুঞ্জন বলেই অভিহিত করছেন।

এদিকে, বিএনপি’র দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করেই পরিবারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে এই বিদেশ পাঠানোর জন্য উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। কিন্তু বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে বাঁধ সেধেছে বিএনপি’র ঢাকা আর লন্ডনের দ্বিমুখী সিদ্ধান্ত। কেননা এখানে বিএনপির রাজনৈতিক লাভ-ক্ষতির হিসাব আছে। যেটা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নিজেও জানেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির একটি অংশ বলছে, ম্যাডামের (খালেদা জিয়া) লন্ডন যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে দলের মধ্যে নানা রকম আলোচনা হচ্ছে। তাছাড়া তিনি যে শুধু চিকিৎসা ব্যতিরেকে রাজনৈতিক ইস্যুতে লন্ডন যাচ্ছেন না, তার কী গ্যারান্টি! আর সেটা আমাদের জানাতেই বা দোষ কোথায়!

এ বিষয়ে দেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলেন, বিএনপি নেতৃবৃন্দের কথা ও কাজে কোন মিল নেই। দেশবাসী ইতোপূর্বে বহুবার তার প্রমাণ পেয়েছেন। খালেদা জিয়া আবারও আরেকবার প্রমাণ দিলেন। কারামুক্তির আগে রাজনীতিতে সক্রিয় না হওয়ার কথা বললেও তিনি ঠিকই ‘চেয়ারপারসনসুলভ’ রূপে ফিরেছেন। আবার চিকিৎসার জন্য দেশত্যাগের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও নতুন নাটক মঞ্চস্থ করে অপতৎপরতা চালাচ্ছেন বিদেশ যাত্রার। কিন্তু তিনি হয়তো ভুলে গেছেন, জনগণ বোকা নয়। তাদের এই কৌশল কাজে আসবে না।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি