বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » ভারতের সমর্থন আদায়ে চুড়ান্ত পর্যায়ের দৌড় ঝাপ বিএনপির



ভারতের সমর্থন আদায়ে চুড়ান্ত পর্যায়ের দৌড় ঝাপ বিএনপির


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
11.09.2021

নিউজ ডেস্ক: চলতি মাসের ১ সেপ্টেম্বর ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করে ৪৪ বছরে পা দিয়েছে বিএনপি। কিন্তু প্রতিষ্ঠার পর থেকে বর্তমানে সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছে দলটি। দীর্ঘ ১৪ বছর ক্ষমতার বাইরে আছে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের হাতে গড়া দলটি।

বিশেষ করে ২০১৪ সালের নির্বাচন বর্জনের পর থেকে বিএনপির রাজনীতি অনেকটা কোণঠাসা হয়ে পড়ে। এরপর ২০১৫ সালের তিন মাসের টানা অবরোধ কর্মসূচির কারণে বিএনপিকে দেশে-বিদেশে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়তে হয়। তবে বিএনপি বরাবর অভিযোগ করে আসছে, ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিবেশী দেশ ভারতের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহযোগিতায় বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে একদলীয় শাসন কায়েম করেছে। ফলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতারা অনেকটা প্রকাশ্যে ভারতের বিরোধিতা করেই বক্তব্য দিতেন।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর থেকে অঘোষিতভাবে বিএনপি প্রকাশ্যে ভারত বিরোধিতার পথ থেকে সরে এসেছে। মূলত বিএনপির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দলের দায়িত্বভার গ্রহণের পর থেকেই ভারতবিরোধী মনোভাব অনেকটা কমেছে দলটির নেতাকর্মীদের ভেতর।

অপরদিকে, যুক্তরাজ্যভিত্তিক একাধিক গোপন সূত্র বলছে, দলীয় স্বার্থসিদ্ধির অনৈতিক প্রচেষ্টায় ভারতকে কাছে না পাওয়ায় পাকিস্তানের দিকে ঝুঁকছেন তারেক রহমান। ভারতের উত্তর-পূর্ব অঙ্গরাজ্যগুলোকে পুনরায় অশান্ত করা, কাশ্মীর ইস্যুতে নতুন করে চাপ সৃষ্টি ও চীনের সাথে নতুন করে সখ্যতা গড়ে তুলে দেশটিকে চাপে রাখতে একমত হয়েছে পাকিস্তান ও বিএনপি। তারই ধারাবাহিকতায় ১০ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) লন্ডনস্থ পাকিস্তান দূতাবাসে এক গোপন বৈঠকে মিলিত হন তারেক ও দেশটির কুখ্যাত গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই’র কর্মকর্তারা। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় যেতে ভারতের সমর্থন আদায়ে ব্যর্থ হওয়ায় তারেক ক্ষুব্ধ হয়েই পাকিস্তানের দ্বারস্থ হয়েছেন। দেশটিকে বাগে আনতে কাশ্মীর ও উত্তর-পূর্ব অঙ্গরাজ্যগুলোতে পুনরায় বিদ্রোহীদের আর্থিক অনুদান, অস্ত্র সরবরাহ ও সীমান্তে জাল টাকা বিস্তারে একযোগে কাজ করবে বিএনপি-আইএসআই। রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করতে ভারতকে চাপে রেখে সমর্থন আদায় করতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিকল্প দেখছেন না তারেক। এছাড়া পাকিস্তানের সাথে ভারতের দীর্ঘ বৈরিতার সুযোগ নিয়ে স্বার্থ হাসিল করতেই অনেক বুঝেশুনে আইএসআই এর সাথে হাত মিলিয়েছেন বিএনপির এই শীর্ষ নেতা।

একটি সূত্র বলছে, গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে পরাজিত বিএনপি অবৈধ উপায়ে ক্ষমতায় যেতে ভারতের সমর্থন চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হওয়ায় প্রতিশোধ নিতে চিরশত্রু পাকিস্তানের সাথে হাত মিলিয়েছে। অবশ্য সাংগঠনিক দুর্বলতা থাকায় ভারতকে অস্থিতিশীল করতে বিএনপিকে ছব্দবেশে সহায়তা করতে চায় পাকিস্তান। পাক দূতাবাসের নির্দেশনায় যাবতীয় কর্মকাণ্ড পরিচালিত হবে। ভারতকে বেকায়দায় ফেলতে বিএনপিকে যাবতীয় সহায়তা দিতে চেয়েছে পাকিস্তান। তবে বিষয়টি রিস্ক ফ্যাক্টর ও সক্ষমতা বিচার করতে তারেক পাক দূতাবাসের কাছে কিছুদিন সময় নিয়েছেন তারেক।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি