বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » জামিন বাড়ায় আয়েশ করে টিকটক ভিডিও দেখছেন খালেদা



জামিন বাড়ায় আয়েশ করে টিকটক ভিডিও দেখছেন খালেদা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
13.09.2021

নিউজ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরও ছয় মাস বাড়ানোয় খুশিতে আয়েশ করে টিকটকের ভিডিও দেখছেন তিনি। জানা গেছে, জামিনের মেয়াদ ফুরিয়ে আসায় দুশ্চিন্তায় থাকলেও মেয়াদ বাড়ায় স্বস্তি ফিরেছে খালেদা জিয়ার মনে।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) রাতে খালেদার ফিরোজার বাসার এক কর্মচারীর কাছ থেকে বাংলা নিউজ ব্যাংক জানতে পেরেছে, নিজের রুম থেকে বের হন না বেগম খালেদা। ফাতেমাকে ডেকে নিয়ে তার হোম থিয়েটারে টিকটকের ভিডিও দেখে সময় কাটাচ্ছেন তিনি। দুই জনের হাসাহাসির শব্দও পাওয়া যায়।

কি ধরণের ভিডিও দেখছেন জানতে চাইলে সূত্রটি জানান, নাচ-গানের ভিডিও। খালেদার বক্তব্য নিয়ে করা টিকটক ভিডিওগুলোও দেখছেন তিনি। তবে বেশিরভাগ সময়ই হিন্দি গানের শব্দ শোনা যায় তার রুম থেকে। টিভি দেখার জন্য মত দিয়েছে আইন মন্ত্রণালয়। সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর পরিবারের পক্ষ থেকে করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ মতামত দেওয়া হয়েছে।

আরও জানা যায়, ইন্ডিয়ান সিরিয়ালের প্রতি পুরনো দুর্বলতা রয়েছে তার। চিকিৎসকরে পরামর্শ মেনে চলছেন আর এসব নাটক, গান আর টিকটকের ভিডিও দেখে সময় কাটাচ্ছেন তিনি।

এদিকে খালেদা পরিবার থেকে জানা যায়, রাজনীতিতে আগ্রহ নেই, বিদেশে চলে যেতে চান তিনি।

সম্প্রতি খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার এবং সাজা মওকুফের কথা বলে তার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর আবেদন করেন। পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে মতামতের জন্য আবেদনটি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত মার্চ মাসে তৃতীয় দফায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে খালেদা জিয়ার কারাভোগের মেয়াদ ছয় মাস স্থগিত করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। চলতি সেপ্টেম্বরে সেই মেয়াদ শেষ হতে যাচ্ছে। মেয়াদ শেষের আগেই খালেদার ভাই শামীম এস্কান্দার আবেদন করেন। সেই আবেদনের বিষয়ে খালেদার মুক্তির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ানোর জন্য মতামত দেয় আইন মন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে ছিলেন খালেদা জিয়া। ২৫ মাস কারাভোগের পর মানবিক দিক বিবেচনায় গত বছর ২৫ মার্চ খালেদা জিয়াকে শর্তসাপেক্ষে জামিনে মুক্তি দেয় আদালত।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি