রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১



দেশ-বিদেশে অর্ধ শতাধিক ‘প্রোপাগান্ডা স্কোয়াড’: নেপথ্যে কারা?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
15.09.2021

নিউজ ডেস্ক: টেকনাফ থেকে তেতুঁলিয়া কিংবা বিদেশ-বিভূঁই, সর্বত্রই গুজব ও অপপ্রচার ছড়ানোর যুদ্ধে লিপ্ত বিএনপি-জামায়াত। তাদের অদ্বিতীয় উদ্দেশ্য বহির্বিশ্ব ও দেশের আপামর জনগণের কাছে উন্নয়নবান্ধব বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করা। সে লক্ষ্যে তারা নিজেদের ‘পেইড এজেন্ট’ দ্বারা দেশ-বিদেশের প্রায় অর্ধ শতাধিক ‘প্রোপাগান্ডা স্কোয়াড’ থেকে ধারাবাহিকভাবে প্রধানমন্ত্রী, মুক্তিযুদ্ধ, সরকার ও করোনা নিয়ে মিথ্যাচার করে আসছে। বিশিষ্টজনদের ভাষ্য, অঙ্কুরেই এসব ষড়যন্ত্র রুখে না দিলে বড় ধরণের ক্ষতির মুখে পড়তে পারে দেশ। তাই এখনই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া জরুরি।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্যমতে, ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’র দেশ থেকে বর্তমানে বিশ্বের বিস্ময় বাংলাদেশ। অর্থনৈতিক ও সামাজিক সব সূচকেই হয়েছে ঈর্ষণীয় অগ্রগতি। আর এ দেখেই গাত্রদাহ শুরু হয়েছে দেশবিরোধী বিএনপি-জামায়াত চক্রের। সে কারণে একের পর এক বুনে যাচ্ছে ষড়যন্ত্রের জাল। যারই অংশ হিসেবে তারা মোটা অংকের অর্থায়নে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা টেলিভিশনে সরকারপ্রধান এবং সেনাপ্রধানকে নিয়ে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করায় তারা। তবে প্রচারিত ওই প্রতিবেদনের শতভাগই মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয় পরে। কারণ, কোথাও ছিল না প্রকৃত তথ্য। পুরো প্রতিবেদনটাই ছিলো মনগড়া ও মিথ্যা তথ্যে পরিপূর্ণ।

এখানেই শেষ নয়। এর আগে ও পরে অনলাইনে সরকারকে হেয় প্রতিপন্ন করে মিথ্যাচার করে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট মহলটি। আর এসব কন্টেন্ট যারা ছড়াচ্ছেন তারা প্রায় সবাই-ই অনৈতিক ও অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য অভিযুক্ত হয়ে দেশত্যাগে বাধ্য হয়েছিলেন। মূলত তাদেরকে টার্গেট করেই ‘প্রোপাগান্ডা স্কোয়াড’ তৈরি করে বিএনপি-জামায়াত চক্রটি। পরবর্তীতে লন্ডনে পলাতক ফেরারি আসামি ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের গ্রীণ সিগন্যাল পেয়ে ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুকের মাধ্যমে তারা শুরু করে আওয়ামী লীগ, সরকার ও স্বাধীনতাবিরোধী প্রোপাগান্ডা। যা এখনো চলমান।

বাংলা নিউজ ব্যাংকের অনুসন্ধানে জানা গেছে, সরকার ও দেশবিরোধী এসব কর্মকাণ্ডে স্বাধীনতাবিরোধী ও যুদ্ধাপরাধী গোষ্ঠীর তরুণ-যুবকদের নিয়োগ করা হয়েছে। তারাই প্রোপাগান্ডা স্কোয়াডের মাধ্যমে গুজব ও অপপ্রচার ছড়িয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে বাধাগ্রস্ত করার অপচেষ্টা করছে। প্রশিক্ষিত এসব তরুণের বেতন-ভাতা, ভরণ-পোষণসহ নানা ধরনের সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে বিএনপি-জামায়াত চক্র। উদ্দেশ্য, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে দেশে অস্থিতিশীল ও অরাজক পরিস্থিতি তৈরি করে আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তাকে নষ্ট করা। সে লক্ষ্যে তাদের পেছনে দেশ ও বিদেশ উভয় জায়গা থেকে করা হচ্ছে কোটি কোটি টাকার ফান্ডিং। বলে রাখা ভালো, এই স্কোয়াডের সদস্যরাই অতীতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়েছে। অপরাজনীতি করেছে অরাজনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন আন্দোলনকে ঘিরেও।

অনুসন্ধানে আরও জানা গেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের বিএনপি-জামায়াতের নিয়ন্ত্রণে তৈরি করা এই প্রোপাগান্ডা স্কোয়াডে কাজ করছে বিএনপি-জামায়াতের উগ্রপন্থী কর্মীরা। যারা সোশ্যালমিডিয়ায় রাষ্ট্র এবং সরকারকে আক্রমণ করে নীল নকশার অংশ হিসেবে কন্টেন্ট আপলোডের পাশাপাশি, তা বুস্টিংয়ের মাধ্যমে মুহুর্তেই ভাইরাল করছে। এছাড়া চক্রটি সম্প্রতি হেফাজতের ব্যানারে উগ্র মৌলবাদী ধর্মান্ধ গোষ্ঠীকে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ নিয়ে প্রোপাগান্ডা চালিয়ে সারাদেশে উত্তেজনা ছড়িয়ে দেয়ার অপচেষ্টা করে। যার ধারাবাহিকতায় কোথাও কোথাও ঘটে অপ্রীতিকর ও অনাকাঙ্খিত ঘটনা। যার মধ্যে কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুর অন্যতম।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, আগামী নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে, তত বেশি গুজব ও অপপ্রচার নির্ভর হয়ে পড়ছে মাঠের রাজনীতিতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ বিএনপি-জামায়াত প্রতিক্রিয়াশীল চক্র। সে কারণে তারা একের পর এক ‘বিশুদ্ধ মিথ্যাচার’ করে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় অর্ধ শতাধিক এই ‘প্রোপাগান্ডা স্কোয়াড’ এর গুজব ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সরকারের পাশাপাশি আমাদের সজাগ থাকতে হবে। যাতে তারা কোনভাবেই তাদের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল না করতে পারে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি