বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » বিদেশে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য বিএনপির নেতাদের অপকৌশল



বিদেশে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য বিএনপির নেতাদের অপকৌশল


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
20.09.2021

নিউজ ডেস্ক : উন্নত জীবনের আশায় রাজনৈতিক আশ্রয়ের কথা বলে দেশ থেকে পালিয়ে বিএনপির অনেক নেতাকর্মী ইউরোপ আমেরিকার বিভিন্ন দেশে অবৈধভাবে বসবাস করছেন। কাগজপত্রের জটিলতার কারণে বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে প্রতিনিয়তই দেশের ভাবমূর্তি খারাপ করছে তারা।

এবার আমেরিকাতে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য বিএনপির নেতাকর্মীরা অপরাজনৈতিক কৌশল বেঁছে নিয়েছে। লক্ষ্যে পৌঁছাতে তারা বানোয়াট রাজনৈতিক কর্মসূচী পালন করছে। এমনকি সুযোগ পেলেই সেখানে বসবাসরত স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের উপর হামলাও চালাচ্ছে। ইনডিফিনিট লিভ টু রিমেইন বা স্থায়ীভাবে থাকার অনুমতি পেতেই তাদের এই ঘৃণ্য কৌশল অবলম্বন।

জানা যায়, অপকৌশলের মাধ্যমে বিএনপির বর্তমান ভারপ্রাপ্ত ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান ব্রিটেনে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। তার দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েই একই পথে হাঁটছেন দলের প্রবাসী নেতাকর্মীরা।

এদিকে কূটনৈতিক তৎপরতার দায়িত্বে থাকা বিএনপি নেতা হুমায়ুন কবীর গণমাধ্যমে বলেছিলেন, ‘তারেক রহমানকে যুক্তরাজ্যে বৈধ স্ট্যাটাসে বসবাসের জন্য অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছিল। বৈধভাবে রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়াটা কঠিন। তাই কিছু অপকৌশলের আশ্রয় নিতে হয়েছিল।’

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, মূলত বিএনপির রাজনৈতিক কৌশলই হচ্ছে ‌’একটি অপকৌশল’। দেশ ও জনগণের সাথে প্রতারণা করাই বিএনপির রাজনীতির সাথে মিশে আছে। তারা কখনোই দেশের সম্মানের কথা ভাবেনি। রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধ উপায়ে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে নিজেদের পকেট বোঝায় করাই ছিল তাদের লক্ষ্য। দেশে নতুন কোন প্রকল্প চালু হতো না তারেক রহমানের হাওয়া ভবনে কমিশন না দিয়ে। কমিশন বাণিজ্যের কারণে তৎকালীন সময়ে তারেক রহমান মিস্টার টেন পার্সেন্ট নামে বিশেষ উপাধি লাভ করেন। দেশ গোল্লায় যাক, নিজেদের আখের গোছাতে সদা মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন তারেক রহমানসহ হাওয়া ভবনস্ত কর্মকর্তারা। এজন্য বিএনপি শাসনামলে দেশ দুর্নীতিতে টানা ৫ বার চ্যাম্পিয়ন হয়। তবে আর যাই হোক, তাদের মুখে গণতন্ত্র কিম্বা রাজনীতির কথা মানায় না। দেশের জনগণ ভোটের রাজনীতির মধ্যদিয়ে তাদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি