বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » তারেকের ওপর হঠাৎ ক্ষেপেছেন রুমিন, কারণ কী?



তারেকের ওপর হঠাৎ ক্ষেপেছেন রুমিন, কারণ কী?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
23.09.2021

তারেক ও রুমিন ফারহানা

নিউজ ডেস্ক: একবার, দু’বার নয় অন্তত ৪৭ বার কল দিয়েছেন। তবুও নাগাল পাননি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের। পরে বাধ্য হয়ে ফোন দেন তার বাসার টিঅ্যান্ডটি নম্বরে। গৃহকর্মীর সাফ জবাব, স্যার বাসায় নেই। সেই সকালে বাইরে গেছে। রাত সাড়ে ১১টা বাজলেও এখনও ফেরেনি। এমন কথা শুনে বেজায় ক্ষুব্ধ রুমিন ফারহানা বলেন, আসলে তোর স্যারকে বলিস আমি ফোন দিয়েছিলাম। আর কিছু বলা লাগবে না। তাহলেই সে বুঝবে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের তথ্যমতে, সকাল ১১টার আগে ঘুম থেকে ওঠেন না তারেক। উঠেই দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্যয় করেন কি কি বিষয়ে গুজব ছড়ানো যায়, তা নিয়ে। পরে নিজেদের মিডিয়া সেলের পেইড এজেন্টেরদের সঙ্গে বসে করেন গুজবের বিষয়ে আলাপচারিতা। ঘড়ির কাটা যখন ১টা তখনই ব্যবসায়ী নেতাদের সঙ্গে ফোনে চলে দলের ফান্ডিংয়ের ব্যাপারে কথোপকথন। পথিমধ্যেই চলে আসে বিএনপি নেত্রী ডালিয়া লাকুরিয়ার ফোন। মধ্যাহ্নভোজের নামে দুপুর ২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত তার সঙ্গে সময় কাটে তারেকের। এরপর ৩টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে নিপুণ রায়ের সঙ্গে ভিডিও কলে দুষ্টু-মিষ্টি আলাপন। ঠিক এই সময়টাতে বিগত দু’দিন ফোন করে তাকে পাননি বিএনপির সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা।

এ কারণে ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি প্রথমে তারেকের বাসার টিঅ্যান্ডিতে, পরে লন্ডনের একাধিক বিএনপি নেতার কাছে ফোন দিলেও পাননি তার হদিস। উপরন্তু জানতে পেরেছেন, তারাও ফোন করে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে পাচ্ছেন না। তবে তাদের ধারণা, এই সময়টাতে তিনি কোন হোটেলে রয়েছেন এবং ডালিম লাকুরিয়ার সঙ্গেই রয়েছেন। এজন্য ফোনে নাগাল পাওয়া যাচ্ছে না।

লন্ডনের কিংস্টনভিত্তিক একটি সূত্রের দাবি, তাদের সঙ্গেও তারেকের যোগাযোগ এখন আগের তুলনায় অনেক কম হয়। হয় না বললেও ভুল হয় না। বেশিরভাগ সময়ই পাওয়া যায় ফোন সুইচ অফ অথবা খোলা থাকলেও তিনি রিসিভ করেন না। এমন অবস্থার মধ্য দিয়েই যাচ্ছে।

তবে রাত ৯টা থেকে ১০টা তিনি অনলাইনে থাকলেও সাড়া দেন না কারো ফোন কলে। এসময় নিমগ্ন থাকেন বিএনপি নেত্রী শামা ওবায়েদের সঙ্গে ভিডিও কলে, এমন তথ্য- একটি গোপন সূত্রের। সূত্রটি বলছে, শামার সঙ্গে ‘রসের আলাপ’ শেষ হলেই তারেক চলে যান ভাড়া করা নারীদের সঙ্গে মদ্যপান ও উন্মত্ত নৃত্যের জন্য নাইট ক্লাবে। পরে সেখানকার রেস্ট রুমে বসে আবারও যুক্ত হন বেবী নাজনীনের সঙ্গে ভিডিও কলে। কথা শেষে আড্ডা দেয়ার নামে ছুটে যান বিএনপির নারী নেত্রীদের সঙ্গে সময়ক্ষেপণে। সেখান থেকে রাত ২টা থেকে ভোর ৪টা, ফোন ফ্লাইট মুডে দিয়ে চলে কমবয়সী কল গার্লদের সঙ্গে তারেকের ‘কোয়ালিটি টাইম’ যাপন।

এসব তথ্য পেয়েই মূলত রুমিন ফারহানা ‘পাগলের মতো’ তারেক রহমানকে ফোন করছেন। জানতে চাইছেন, প্রকৃত তথ্য। কিন্তু কোনভাবেই তার নাগাল পাচ্ছেন না তিনি। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে এই বিএনপি সাংসদ দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের উদ্দেশ্যে বলছেন, খাইলে এক ফুলের মধু খাও। সব ফুলের কেন? এই স্বভাব কবে যাবে তোমার?

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ভাষ্য, হঠাৎ রুমিন ফারহানার এই তৎপরতাই প্রমাণ করে দেয়, তারেকের সঙ্গে তার গোপন সম্পর্ক রয়েছে। আর এখন এমন কিছু ঘটেছে, যার জন্য তাকে হন্যে হয়ে খুঁজছে বিএনপির এই সংসদ সদস্য। কে জানে, তারেককে খুঁজে না পেলে হয়তো থলের বিড়াল বের হয়ে আসলেও আসতে পারে। ধারণা করা হচ্ছে, সেটি হবে অচিরেই।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি