রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Breaking » বাংলাদেশের ২০২৩ সালের নির্বাচন নিয়ে এখনই তৎপর পাকিস্তান



বাংলাদেশের ২০২৩ সালের নির্বাচন নিয়ে এখনই তৎপর পাকিস্তান


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
24.09.2021

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশের রাজনীতিতে আবারও পাকিস্তানের তৎপরতা বেড়েছে। পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই বাংলাদেশের আসন্ন নির্বাচন নিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ঢাকায় এবং লন্ডনে আইএসআইয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের একাধিক বৈঠকের খবর পাওয়া গেছে। তথ্য মিলেছে, লন্ডনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে তারেক রহমানকে আইএসআই ‘নির্বাচনী সহায়তা’ দিচ্ছে। ২০০১ সালের নির্বাচনেও বিএনপিকে অর্থ জুগিয়েছিল পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। এবারও নির্বাচনে বেশ কিছু প্রার্থীদের জন্য থাকবে পাকিস্তানি অনুদান।

অবশ্য বিএনপির একজন নেতা বলেছেন, ‘বিএনপিতে যেন পাকিস্তানপন্থীরা কোণঠাসা না হয়, তাঁদের পছন্দের প্রার্থীরা যেন মনোনয়ন থেকে বাদ না পরে সেজন্যই পাকিস্তান তৎপর থাকে।’ তাঁর মতে, প্রতি নির্বাচনেই পাকিস্তান এটা করে। বিএনপির একটি সূত্র বলছে, সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপির সম্পৃক্ততা পাকিস্তানকে কিছুটা হলেও বিচলিত করেছে। এতে করে বাংলাদেশে পাকিস্তানি স্বার্থের চির অবসান ঘটতে পারে বলে পাকিস্তানি কূটনীতিকরা মনে করছে। এজন্যই তারা তৎপর হয়েছে।

সূত্র মতে, বিএনপির অন্যতম শরিক জামায়াত যেন ‘সম্মানজনক’ আসন পায় এবং বিএনপির মধ্যে যারা পাকিস্তানপন্থী রয়েছেন, তাঁরা যেন মনোনয়ন থেকে বাদ না পড়েন সেজন্য আইএসআই লন্ডনে তারেক রহমানের সঙ্গে অন্তত দু-দফা বৈঠক করেছে। জানা গেছে, তারেক রহমান তাদের আশ্বস্ত করেছে- জামায়াতকে অখুশি করা হবে না।

বাংলাদেশেও ঐক্যফ্রন্টের একজন বিএনপি নেতার সঙ্গে বাংলাদেশস্থ পাকিস্তান দূতাবাসের একজন কর্মকর্তার দু-দফা বৈঠকের খবর পাওয়া গেছে। ঐ নেতা বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রভাবশালী সদস্য। ঐ নেতার কাছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠকে কার কি অবস্থান তা জানতে চেয়েছে পাকিস্তানি কূটনীতিক। বিশেষ করে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর যোগদান কতটা দরকার ছিল সেই প্রশ্ন উত্থাপন করেছে দূতাবাস। এছাড়াও ঐক্যফ্রন্টের নেতারা যেন জামায়াতের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে কথা না বলে সে পরামর্শও দিয়েছে পাকিস্তানি দূতাবাসের কর্মকর্তারা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানদের কয়েকজনকে মনোনয়ন দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে দূতাবাস। একই সঙ্গে, নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কৌশল এবং প্রার্থী সম্পর্কেও বেশ কিছু তথ্য বিএনপির হাতে দেওয়া হয়েছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে।

কূটনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে পাকিস্তানের প্রধান নির্ভরতা হলো বিএনপি। নির্বাচনে যেন বিএনপি-জামায়াত এবং পাকিস্তানপন্থীদের দূরে ঠেলে না দেয়, তা নিশ্চিত করতেই এবারের নির্বাচনে পাকিস্তান তৎপর।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি