রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » রাঙ্গামাটি জেলা ছাত্রদল সভাপতির বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা



রাঙ্গামাটি জেলা ছাত্রদল সভাপতির বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
25.09.2021

রাঙ্গামাটি জেলা ছাত্রদল সভাপতি ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক আহম্মেদ সাব্বিরের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার মামলা হয়েছে। নিজ স্ত্রী মনিকা আক্তার ও ফারুক আহম্মেদ সাব্বিরকে আসামি করে মামলাটি দায়ের করেন জেলা শহরের কলেজ গেইট এলাকার বাসিন্দা মোস্তাফিজুর রহমান।

মামলায় মনিকা আক্তারকে এক নাম্বার ও সাব্বিরকে দ্বিতীয় নাম্বার আসামি করে অজ্ঞাতনামা আরও ৬/৭ জনকে আসামি করা হয়েছে। রাঙ্গামাটি কোতোয়ালী থানায় গত ২২ সেপ্টেম্বর মামলাটি দায়ের করা হয়।

বাদীর অভিযোগ আমলে নিয়ে পুলিশ ৩৪১/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩২৭/৫০৬/৩৪ ধারায় মামলা নিয়েছে। কোতোয়ালীর থানার মামলা নং- ১৬।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, গত ২৯ জুলাই রাত আনুমানিক ৮টার দিকে জেলা শহরের রাণী দয়াময়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে গাড়ি থামিয়ে বাদীর স্ত্রী মনিকা আক্তার ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেন মোস্তাফিজুর রহমানকে। এসময় মনিকা খুন করা আদেশ দিলে আরও অজ্ঞাতনামা ৬/৭ জন মুখোশধারী তার ওপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকেন। এসময় একজনের মুখোশ খুলে গেলে তিনি জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ফারুক আহম্মেদ সাব্বিরকে চিনতে পারেন।

অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, সাব্বির ধারালো দা দিয়ে তাকে হত্যার উদ্দেশে কোপাতে থাকে। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রামে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। তার মাথায় ও কানে মোট ৪৭টি সেলাই করা হয়েছে।

মামলা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জেলা ছাত্রদল সভাপতি ফারুক আহম্মেদ সাব্বির বলেন, ‘আমি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার। মামলার বাদী আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। এ ধরণের কোনো হামলার সঙ্গে আমি জড়িত ছিলাম না। যেহেতু তিনি মামলা করেছেন; আমি আইনগতভাবেই মোকাবিলা করব।’

জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর সুমন বলেন, ‘মামলার বিষয়টি লোকমুখে শুনেছি। তবে বিস্তারিত জানি না, তাই আপাতত বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে পারছি না।’

রাঙ্গামাটি কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কবির হোসেন বলেন, ‘মামলা হয়েছে। তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি