বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » ঘাড় ধরে লন্ডন থেকে নিয়ে আসা হবে, তারেককে প্রতিমন্ত্রী মুরাদ



ঘাড় ধরে লন্ডন থেকে নিয়ে আসা হবে, তারেককে প্রতিমন্ত্রী মুরাদ


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
08.10.2021

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ড. মুরাদ হাসান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘কবে তুমি (তারেক) আমাদের সঙ্গে যুদ্ধ করবা সময় ঘোষণা করো। তোমাকে ঘাড় ধরে লন্ডন থেকে নিয়ে আসা হবে। অপেক্ষা করো।’

সম্প্রতি জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে অনলাইন পোর্টাল বিডি সমাচার২৪ ডটকমের তৃতীয় বর্ষপূর্তিতে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ তার বক্তব্যে বলেন, ‘অনেক সহ্য করেছি। বিদেশের মাটিতে তারেক জিয়া বসে থেকে বলবে জাতীয়তাবাদীদের পিতা জিয়াউর রহমান। এই অন্যায় কখনো বাংলায় হবে না। এই স্বপ্ন কোনোদিন পূরণ হবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমি মুরাদ আজ এই প্রেস ক্লাবে বললাম, আমি বাঙালি। আমি স্বাধীন বাংলায় জন্মগ্রহণ করেছি। আমি পাকিস্তানের মাটিতে জন্মগ্রহণ করিনি। আমি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। আমি কোনো কু-সন্তান নই।’

এসময় তারেক রহমানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘তারেক রহমান দেখা হবে তোমার সঙ্গে। তুমি প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কথা বলো! তোমার মা একটা চোর। এতিমের টাকা আত্মসাৎকারী। তুমি একটা খুনি, কুলাঙ্গার। তোমাকে ঘাড় ধরে লন্ডন থেকে নিয়ে আসা হবে, অপেক্ষা করো। কবে তুমি আমাদের সঙ্গে যুদ্ধ করবা সময় ঘোষণা করো।’

বিদেশে বসে নানা বক্তব্য দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমার মতো মেলা মুরাদ বেঁচে আছে। লন্ডনের আস্ফালন বন্ধ করতে কয়জন মুরাদ লাগবে? আমরা দেখবো। চার-পাঁচটা শেয়াল-কুকুর, তোমাদের শায়েস্তা করতে বেশি লোক লাগবে না। ইউটিউবে লেকচার দাও না? কত টাকা খাইছো? মানুষ বোঝে, আমরা ফিডার দিয়ে দুধ খাই না।’

তিনি আরও বলেন, সাংবাদিকতার নামে নষ্টামি-ভণ্ডামি করবা এটা মেনে নেওয়া হবে না। আমরা সব আইন করে দেবো ইনশাআল্লাহ। গণমাধ্যম আইন, সম্প্রচার আইন সব করেছি।

মুক্তিযুদ্ধের সময়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের নাম দিয়েছিল ইসলামিক রিপাবলিক অব বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশকে ধ্বংস করে পাকিস্তানের বাংলাদেশ বানাতে চেয়েছিল। তাকে পৃষ্ঠপোষকতা করেছিল দালাল ও খুনি মুশতাক। খুনিদের উল্লাস বঙ্গভবনেও হয়েছে ৭৫-এর পর, যা বাংলাদেশের মানুষ দেখেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জিয়া এই খুনিদের পদায়ন করে বিদেশের মাটিতে রাষ্ট্রদূত, সেক্রেটারি করেছে। আর তারা সেখানে গিয়ে বলেছে, আমরা খুন করেছি বঙ্গবন্ধুকে।’

বাক-স্বাধীনতার বিষয়ে মুরাদ বলেন, ‘এই যে ফ্রিডম অব স্পিসের কথা বলেন, একটু সিঙ্গাপুর যান। সেখানে গিয়ে দেখেন, ফ্রিডম কেমন। একটু আমেরিকা যান, বলেন সেখানে। বাংলাদেশ এই ফ্রিডম অব স্পিস জাতির পিতা দিয়েছেন। বাংলাদেশের ফ্রিডম জাতির পিতা এনেছেন। অন্য কেউ বাঁশি ফু দিয়ে আনেনি। আমরা বাংলাদেশ করুণা দিয়ে নয়, রক্ত দিয়ে এনেছি।’

করোনার টিকার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ হাসিনার জন্য এখন সব সম্ভব হচ্ছে। আমরা কত মানুষকে ভ্যাকসিনেটেড করতে সক্ষম হয়েছি। আমরা তো পৃথিবীর ধনী দেশ না। আমাদের সবচেয়ে বড় অস্ত্র, বড় শক্তি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি থাকলে কেউ না খেয়ে মরবে না। টিকা না নিয়ে করোনার সঙ্গে যুদ্ধ করে মৃত্যুবরণ করবে না। কয়টা দেশে পয়সা ছাড়া টিকা দিয়েছে। বলতে পারবেন’- প্রশ্ন রাখেন তিনি

করোনাকালে সাংবাদিকদের অবদানের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি গণমাধ্যমকর্মীদের স্যালুট দিই। তারা এই প্যানডেমিকের মধ্যেও ঘরে বসে ছিল না। আমি দেখেছি। আমি তাদের সম্মান জানাই।’

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বিডি সমাচার ২৪ ডটকমের উপদেষ্টা সুজিত রায় নন্দী, সম্পাদক মো. মহসিন হোসেন, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের সম্পাদক সাইফুল আলম, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদ, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মিজান মালিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি