শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » আবারও খালেদাকে ‘মা দুর্গা’ বলে ডাক গয়েশ্বরের, হিন্দুদের ক্ষোভ!



আবারও খালেদাকে ‘মা দুর্গা’ বলে ডাক গয়েশ্বরের, হিন্দুদের ক্ষোভ!


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
09.10.2021

খালেদা ও গয়েশ্বর

নিউজ ডেস্ক: চাটুকারিতার সব লেভেলই যেন অতিক্রম করলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। সম্প্রতি তিনি দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ‘মা দুর্গা’র সঙ্গে তুলনা করেছেন। এতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ দারুণ ক্ষুব্ধ হয়েছেন। তারা বলছেন, গয়েশ্বর তেলবাজি করতে গিয়ে এর আগেও একবার এমন বলেছিলেন। এটা ঘোরতর পাপ। দেবী এসব সইবেন না। তিনি নিশ্চয়ই শাস্তিপ্রাপ্ত হবেন। ঈশ্বরই তাকে শাস্তি দেবেন। কে জানে সেটা হয়তো অচিরেই।

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী তিথিতে দেবীর আমন্ত্রণের মধ্য দিয়ে শুরু হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা। আর ১৫ অক্টোবর দশমী তিথিতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে দুর্গোৎসব। বর্তমানে সে উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে বইছে উৎসবের আমেজ। এমতাবস্থায় ৮ অক্টোবর (শুক্রবার) বিকেল ৪টায় রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দেন।

পেশাজীবীদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকের এক পর্যায়ে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) হলেন আমাদের ‘মা দুর্গা’। তিনি আছেন বলেই আমরা এগিয়ে যাওয়ার সাহস পাই। কিন্তু বর্তমানে তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ায় আমরা তারেক রহমানের নেতৃত্বে অভীষ্ট লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি।

শারদীয় দুর্গাপূজার এই লগ্নে গয়েশ্বরের এমন মন্তব্যে যারপরনাই ক্ষুব্ধ হয়েছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। তারা বলছেন, তোষামোদ করতে গিয়ে গয়েশ্বর বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মা দুর্গার সঙ্গে তুলনা করেছেন। তিনি হয়তো ভুলে গেছেন কোনটা রাজনীতি আর কোনটা ধর্ম। তার মত ভণ্ড ও সুবিধাবাদী পূজারী মা দুর্গার নয়, খালেদার দরকার। তার স্থান মন্দিরে নয়, খালেদার পদতলে।

তারা আরও বলেন, ঠাকুর গয়েশ্বরের এই কথা সইবে না। একজন হিন্দু হয়ে তিনি কিভাবে এই কথা বলেন? একবারও কি তার বিবেকে বাঁধল না বিষয়টা? তিনি কি ভেবেছেন, এমন তেলবাজি করলে দলে তার মূল্যায়ন বাড়বে? কখনই না। বোকার স্বর্গ থেকে তাই থেকে এখনই বের হয়ে আসতে হবে এবং সেটা দেবী দুর্গার কাছে ক্ষমা চেয়েই। নতুবা তিনি মুখোমুখি হবেন কঠিন শাস্তির। আর সেটা আমরা নয়, দেবীই দেবেন।

এ ব্যাপারে জানতে যোগাযোগ করা হয় গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সঙ্গে। তিনি বলেন, কি বলেছি কিংবা বলা উচিত, সে সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান আমার আছে। তাই এ নিয়ে আর কথা বাড়ানো উচিত না। কারণ, আমি মোটেই মূর্খ না। তাছাড়া, ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) তো আমাদের মা-ই, তাই তাকে ‘মা দুর্গা’ বলাটা অন্যায় কোথায়?



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি