শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১



জামায়াতের পক্ষ থেকে আন্দোলনের ডাক দিচ্ছে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
10.10.2021

ফখরুল ও তারেক

নিউজ ডেস্ক : সাম্প্রতিক সময়ে বিএনপি রাজপথে আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে এবং দলের পেশাজীবী সংগঠনগুলো দিচ্ছে এক দফার ডাক। তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহল বলছে বিএনপির যে আন্দোলনের হুংকার এবং সরকারবিরোধী বড় দলের আন্দোলন গড়ে তোলার যে চিন্তাভাবনা এটি পুরোটাই জামায়াতের পরিকল্পনা। বিএনপিকে সামনে ঠেলে দিয়ে জামায়াত আসলে ষড়যন্ত্রের ফাঁদ পাচ্ছে । এবং সাম্প্রতিক সময়ে যা কিছু আছে তার সব কিছুর মধ্যেই জামায়াত জড়িত রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে যে, বর্তমান সরকার ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কার্যক্রম শুরু করে। এই বিচার কার্যক্রমে জামায়াতের শীর্ষ নেতারা প্রায় সবাই দণ্ডিত হয়ে সর্বোচ্চ শাস্তি ভোগ করেছেন। তারপরও সংগঠনটি তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত তার নেটওয়ার্ক বিস্তৃত করেছে। একটা সময় পর্যন্ত সরকারের কঠোর নজরদারির মধ্যে ছিল জামায়াত। যেখানে জামায়াত রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের পরিকল্পনা গ্রহণ করার জন্য দলবদ্ব হত সেখানেই আইন প্রয়োগকারী সংস্থা উপস্থিত হত । তার ফলে, তাদের সেই সমস্ত পরিকল্পনাগুলো নস্যাৎ করে দিত। কিন্তু এখন দেশে বিদেশে জামায়াত নিজেকে ব্যাপকভাবে সংঘটিত করছে।

একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, লন্ডনে বসে যে বাংলাদেশে বিরোধী ষড়যন্ত্র চলছে সেটিতে প্রকাশ্যে তারেক রহমান থাকলেও এর মূল অর্থ জোগানদাতা এবং পরিকল্পনাকারী হল জামায়াত। যুদ্ধাপরাধীদের দণ্ডিত সন্তানরা এখন লন্ডনে বসে আছে। বিভিন্ন দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে মোটা অর্থায়ন আছে এর প্রমাণ পাওয়া গেছে। বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে সরকার, রাষ্ট্র এবং সেনাবাহিনী বিরোধী নানা অপপ্রচার করছে। জামায়াতের শিক্ষিত বুদ্ধিজীবী হিসেবে যারা পরিচিত তারা এখন প্রকাশ্যে মুখ খুলছে এবং সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলছে। সরকারের ভেতর জামায়াতের একটা বিপুল অংশ আছে যারা নীরবে-নিভৃতে কাজ করছে। এদের কেউ কেউ সরকারের ঘনিষ্ঠ হওয়ার ভান করছে এবং সরকারের গোপন তথ্য বের করে বাইরে পাঠাচ্ছে।

জানা গেছে যে, দেশে জামায়াত সংঘটিত হওয়ার জন্য দেশের প্রতিটি উপজেলায় এবং তৃণমূল পর্যায়ে আবার নতুন করে সংগঠিত হচ্ছে। অবশ্য তারা নিজেরাই সংঘটিত হচ্ছে না বরং তারা অন্যান্য জঙ্গি সংগঠনগুলোকে সংগঠিত করার চেষ্টা করছে। এবং সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির জন্য জামায়াতের প্ররোচনায় বিএনপি মাঠে নেমেছে। কারণ বিএনপি মাঠে থাকলে জামায়াত নীরবে-নিভৃতে তার সাংগঠনিক তৎপরতা চালাতে পারে। আর এই নীরব নীলনকশার মূল লক্ষ্য হলো সরকারের বিরুদ্ধে একটি চরম আন্দোলন বা ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করা। কিন্তু সেটি এখন শেষপর্যন্ত সফল হবে কিনা দেখার বিষয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি