শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » ১৩ বছরের জমানো আন্দোলন একবারে করবে বিএনপি



১৩ বছরের জমানো আন্দোলন একবারে করবে বিএনপি


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
12.10.2021

বিএনপি

নিউজ ডেস্ক : গত কয়েক দিন ধরেই বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে বিএনপি। দলের পেশাজীবী সংগঠনগুলোর দীর্ঘদিনের দাবির পর বিএনপি নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি তুললো। যদিও ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে অনুষ্ঠিত সংলাপে বিএনপি ওই দাবি থেকে সরে এসেছিল। এখন নতুন করে এই দাবি তোলার মূল কারণ হলো তৃণমূলের নেতাকর্মীদের এই দাবির প্রতি আগ্রহ এবং বিএনপি ধাপে ধাপে একটি আন্দোলনের দিকে এগুতে চায়।

বিএনপি নেতারা বলছেন, তারা এইসব কর্মসূচির মধ্য দিয়ে চলতি বছরের ডিসেম্বর নাগাদ একটি চূড়ান্ত আন্দোলনের রূপ দিতে চায়। বিএনপির স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য বলেছেন, বিএনপি বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় করার পরিকল্পনা নিয়েছে এবং বিএনপিপন্থী বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষদেরকে সংঘবদ্ধ করার ব্যাপারে কাজ শুরু করেছে। বিএনপির একজন সাংবাদিক নেতা এই কার্যক্রম শুরু করেছেন বলেও বিএনপির একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

বিশেষ করে বিএনপিপন্থী বুদ্ধিজীবী, চিকিৎসক এবং অন্যান্য পেশায় যারা আছেন তাদেরকে নিয়ে একটি ঐক্যবদ্ধ প্লাটফর্ম গড়ে তুলতে চায় বিএনপি। যাতে অবসরপ্রাপ্ত সামরিক, বেসামরিক কর্মকর্তাও থাকবেন। এই সুশীল সমাজের প্লাটফর্ম করার পর বিএনপি আবার ২০ দলকেও পুনরুজ্জীবিত করতে চায়। বিএনপি নেতারা বলছেন, তারা এখন আর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যাপারে আগ্রহী নয়। ২০ দলকে পুনরুজ্জীবিত করে ২০ দলের প্লাটফর্মেই ধাপে ধাপে কর্মসূচি গ্রহণ করতে চায়।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, একক আন্দোলন নয়। বিএনপি মনে করে এই সরকারের বিরুদ্ধে সকল রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ করা দরকার এবং সেজন্য বিএনপি নেতৃত্ব দিতে পারে।

তবে বাংলাদেশের বামপন্থী রাজনৈতিক দলগুলো এখন বিএনপির সঙ্গে আন্দোলনে মোটেও আগ্রহী নয়। বিশেষ করে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্কের কারণে অধিকাংশ গণতান্ত্রিক চিন্তা চেতনার রাজনৈতিক দলই বিএনপির ব্যাপারে অনাগ্রহী। আর এই বাস্তবতায় শেষ পর্যন্ত বিএনপিকে ২০ দলের ওপর ভর করেই এগুতে হবে। বিএনপি নেতারাও বলছেন যে, কিছু দিনের মধ্যে তারা ২০ দলকে ঐক্যবদ্ধ করা এবং সংগঠিত করার চেষ্টা করবে।

বিএনপির একজন নেতা বলেছেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের তৃতীয় বর্ষপূর্তিতে তারা একটি বড় ধরনের আন্দোলনের রূপ দেখাতে চায়। তবে বিএনপি এ ধরনের আন্দোলনের কথা বিভিন্ন সময় বলেছে কিন্তু গত ১৩ বছরে একটি যৌক্তিক আন্দোলনকে জনগণের সামনে উপস্থাপন করতে পারেনি। এবারও এই আন্দোলনের যে পরিকল্পনা, সেই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন কতটুকু ঘটবে সেটাই দেখার বিষয়।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি