রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » আন্তর্জাতিক মহলে বাংলাদেশ নিয়ে ইসকনের মিথ্যাচার



আন্তর্জাতিক মহলে বাংলাদেশ নিয়ে ইসকনের মিথ্যাচার


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
19.10.2021

ইসকন হিন্দুরা

নিউজ ডেস্ক: মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার চেষ্টা করছে কট্টরপন্থী হিন্দু সংগঠন। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সহিংসতা নিয়ে শুরু থেকেই মিথ্যা তথ্য ছড়াচ্ছে ইসকন হিন্দুরা।

সম্প্রতি বাংলাদেশে এসে জগত গুরু গৌরাঙ্গ দাস এবং নাড়ু গোপাল দাস নামে দুই ইসকন প্রতিনিধি নোয়াখালির মন্দিরে হামলার ঘটনা খতিয়ে দেখে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছেন। প্রতিবেদনটি ইসকনের সর্বচ্চো গভর্নিং বডির কাছে পাঠিয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে বাংলাদেশের উপর আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র করার পাঁয়তারা করছে তারা। ইসকনের সেই প্রতিবেদন ধরে বলা হচ্ছে, ‘বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অপরাধীদের আটক করছে না। পুলিশের সামনে দিয়ে এখনও হামলাকারীরা ঘুরে বেড়াচ্ছে’।

অথচ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এখন পর্যন্ত ৭১ মামলায় ৪৫০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এমনকি কুমিল্লার ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে যে ব্যক্তি মন্দিরে ঢুকেছিল, তার নাম-পরিচয় সম্পর্কে সুস্পষ্ট তথ্য পেয়েছেন গোয়েন্দারা। জানা যায়, তার বাড়ি কুমিল্লায়। ঘটনার পর থেকে সে পলাতক।

এদিকে গাজীপুরের কাশিমপুরে বিভিন্ন মন্দিরে হামলার নেপথ্যে যারা ভূমিকা রেখেছিল, তাদেরও শনাক্ত করা হয়েছে। তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে পোশাক শ্রমিকদের কৌশলে রাস্তায় নামিয়ে মন্দির ভাঙচুর করতে মুখ্য ভূমিকা পালন করে জামায়াত-শিবিরের নেতা লুৎফর রহমান, সাইফুল ইসলাম ও রবিউল হাসান।

ইসকনের সেই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ সরকার সাম্প্রদায়িক সহিংসতা নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক চাপ তৈরিতে সকলের এগিয়ে আসা উচিত’।

মিথ্যা তথ্যে ভরা প্রতিবেদনটি নিয়ে কয়েকটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও অতিরঞ্জিত করে সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে। ইসকনের পক্ষ নিয়ে বাংলাদেশের বিরুদ্ধাচরণ করছে তারা। এমনকি একটি গণমাধ্যম জাতিসংঘের সমালোচনা করে বলেছে, ‘ঘটনার দিন জাতিসংঘ মহাসচিবের কাছে এক ইসকন হিন্দু নেতা চিঠি পাঠালেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি তারা’।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনার বিস্তারিত লিখে ১৬ অক্টোবর ২০২১ (শনিবার) জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তেনিও গুতেরেস বরাবর চিঠি দেয় উগ্রবাদী এই সংগঠনটি। সেখানেও মিথ্যা তথ্য দিয়েছে ইসকন।

সংগঠনটির ভারতের কলকাতা শাখার ভাইস প্রেসিডেন্ট রাধারমন দাস স্বাক্ষরিত সেই চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘গত ৯ দিন যাবৎ বাংলাদেশে হিন্দুদের উপর সীমাহীন নির্যাতন চালানো হচ্ছে। নোয়াখালী জেলায় যে হিন্দুরা এর প্রতিরোধ করতে গিয়েছে তাদের উপরই ১৯৪৬ সালের দাঙ্গা এবং ‘৭১-এর আদলে নির্যাতন করা হয়েছে।

উগ্রবাদী সংগঠন ইসকনের দেয়া সকল তথ্য মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন। এবং এটিকে বাংলাদেশবিরোধী ষড়যন্ত্র হিসেবে দেখছে বিশিষ্টজনেররা।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি