রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 1 » একই দিনে বিএনপির কর্মসূচি ও নুরের দলের আত্মপ্রকাশ, কি বার্তা দিচ্ছে?



একই দিনে বিএনপির কর্মসূচি ও নুরের দলের আত্মপ্রকাশ, কি বার্তা দিচ্ছে?


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
26.10.2021

নুরের দলের আত্মপ্রকাশ

নিউজ ডেস্ক: যে দিনে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সম্প্রীতি মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করেছে বিএনপি, সেই একই দিনকেই কেন নিজের নতুন রাজনৈতিক দলের আত্মপ্রকাশের দিন হিসেবে বেছে নিলেন ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর? এখন তাদের উদ্দেশ্য কী, তা একেবারেই স্বচ্ছ জলের মতো পরিষ্কার হয়ে গেলো।

বিশিষ্টজনরা বলছেন, সব রসুনের কোয়ার যোগসূত্র এক জায়গায়। হাজার মাইল দূরে লন্ডনে। তিনি যা বলেন, যেভাবে বলেন, সেভাবেই কাজ করেন তার অনুগত অনুসারী। নেপথ্যের প্রধান মাস্টারমাইন্ড তিনিই। তারেক রহমান চাইছেন, যে করেই হোক দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলে পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যেতে। এ কারণে অনলাইন-অফলাইন উভয় মাধ্যমের জন্যই তিনি মোটা অংকের বাজেট বরাদ্দ রেখেছেন। বলছেন, ডু অর ডাই। এটাই শেষ সুযোগ। তাই সবাইকে আমাদের এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

বিশ্বস্ত সূত্রের তথ্যমতে, অনেক দিন ধরেই নিজের নতুন রাজনৈতিক দল ঘোষণার কথা বললেও তারেক রহমানের ইশারায় তা স্থগিত রেখেছিলো ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। পরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের সঙ্গে এক রুদ্ধদ্বার ভার্চুয়াল বৈঠক শেষে তারেক ঘোষণা দেন, যেদিন নয়াপল্টনে মিছিল হবে, সেদিন যেন পল্টনে নুর নতুন রাজনৈতিক দল ঘোষণা করে। তাহলে অনেক লোক সমবেত হবে। আমাদের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিতে সুবিধা হবে।

গুরুর কথা অমান্য করেনি নুর। তারেকের কথা মতো, ২৬ অক্টোবর (মঙ্গলবার) দুপুরে পল্টনের প্রিতম জামান টাওয়ারে আনুষ্ঠানিকভাবে দলের নাম ঘোষণা করেন তিনি। আর এখানে আসার আগে তিনিসহ তার নেতাকর্মীরা বিএনপির ওই সম্প্রীতি মিছিলে ছিলেন বলে জানা গেছে। সেখানে হাঙ্গামা শেষে এসে ড. রেজা কিবরিয়াকে নিয়ে ‘বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদ’ নামে নতুন রাজনৈতিক দলের আত্মপ্রকাশ করেন তিনি।

নতুন দলের আত্মপ্রকাশের সময় ড. রেজা কিবরিয়াকে আহ্বায়ক ও নুরুল হক নুরকে সদস্য সচিব করে দলটির ১০১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া কমিটির বিভিন্ন পদে ছাত্র, যুব, শ্রমিক অধিকার পরিষদের বর্তমান-সাবেক নেতাদের অনেকেই রয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা বলছেন, নুরের নতুন রাজনৈতিক দল ‘বাংলাদেশ গণ অধিকার পরিষদ’, নতুন বোতলে পুরনো মদ কিংবা বিএনপির লেটেস্ট ভার্সন ছাড়া অন্যকিছু নয়। এটা এখন সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সম্পূর্ণরূপে পরিষ্কার। স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তিরা খুব করে চাইছে ক্ষমতার মসনদে বসে দেশকে পুনরায় দুর্নীতিতে হ্যাট্রিক বানাতে, নিজেদের খায়েশ পূরণ করতে। কিন্তু একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে তা আমরা হতে দিতে পারি না। তাই আসুন সরকারের পাশাপাশি সকলেই সদাজাগ্রত থাকি, যাতে পাকিপ্রেতাত্মারা কোনভাবেই নিজেদের নোংরা গন্তব্যে পৌঁছতে না পারে।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি