সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 2 » শর্মিলা দেশে আসায় শঙ্কিত তারেক, জোবায়দা ও শামীম এস্কান্দার



শর্মিলা দেশে আসায় শঙ্কিত তারেক, জোবায়দা ও শামীম এস্কান্দার


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
01.11.2021

নিউজ ডেস্ক : হাসপাতালে ভর্তি আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ইতোমধ্যে তার বায়োপসি রিপোর্ট পাওয়া গেছে। সেই অনুযায়ী চিকিৎসকেরা তার চিকিৎসা দিচ্ছেন। এদিকে খালেদা জিয়ার দেখাশোনার জন্য যুক্তরাজ্য থেকে দেশে এসেছেন প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি। জানা যায়, দেখাশোনার আড়ালে সিঁথি তার প্রাপ্ত সম্পত্তির ভাগ বুঝে পেতে খালেদা জিয়াকে প্রচণ্ড জোর করছেন। এ খবর লন্ডনে পৌঁছানোর পর থেকে শর্মিলার ওপর বেদম চটেছেন তারেক দম্পতি।

ইতোমধ্যে এ বিষয়ে শর্মিলাকে ফোন করে শাসিয়েছেন তারেক পত্নী জোবায়দা রহমান। জোবায়দা রহমান ফোন করে শর্মিলাকে বলেছেন, তিনি যদি জিয়া পরিবারের সম্পত্তি নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করেন, তবে শর্মিলাকে লন্ডনে আর প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। যদিও পাল্টা জবাবে শর্মিলা জানিয়েছেন, তারেক রহমানকে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না দেয়ার চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত করতেই তিনি বাংলাদেশে এসেছেন। লন্ডন ভিত্তিক একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, উক্ত বিষয় নিয়ে জিয়া পরিবারের অন্তঃকোন্দল ইতোমধ্যে এভারেস্টের সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছেছে।

এ বিষয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এটি নিতান্তই তাদের পারিবারিক বিষয়। এ বিষয় দলীয় রাজনীতিতে প্রভাব ফেলবে না। আমরা আপাতত ২০২৩ সালের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সংক্রান্ত কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত আছি। এ মুহূর্তে জিয়া পরিবারের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে কথা বলার কোনো ইচ্ছা আমাদের নেই। যদিও তাদের পারিবারিক জটিলতা বিএনপির রাজনীতিতে প্রভাব ফেলবে এতে কোনো সন্দেহ নেই।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কথার সূত্র ধরে লন্ডন মহানগর বিএনপির নির্বাহী সদস্য দেলোয়ার হোসেন বলেন, বর্তমান বিএনপি কয়েক ভাগে বিভক্ত। লন্ডনে রয়েছে তারেক-শর্মিলা গ্রুপের আধিক্য। যদিও মালয়েশিয়া বিএনপিতে রয়েছে একচেটিয়া শর্মিলার প্রভাব। বর্তমানে শর্মিলা চাচ্ছেন বাংলাদেশে নিজের অবস্থান পাকাপোক্ত করতে। আর এ কারণে খালেদা জিয়াকে দেখভাল করার নামে বিএনপির রাজনীতিতে অবস্থান গড়তেই তিনি বাংলাদেশে গিয়েছেন। কারণ শর্মিলা মনে করছেন, হয়তো রাজনীতিতে শক্ত অবস্থান গড়তে পারলে তিনি কোকোর সম্পত্তি নিজের নামে লিখিয়ে নিতে পারবেন। সকলেই রাজনীতির চেয়ে সম্পত্তিকে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন। এটি দুঃখজনক।

দেলোয়ার হোসেন আরো বলেন, শুধু তারেক-শর্মিলাই নন, খালেদা জিয়ার ভাই-বোনেরাও তার সম্পদের কিছু অংশ দেখভালের নামে হাতিয়ে নেয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। বিশেষ করে ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার সৌদি আরব ও মালয়েশিয়ায় খালেদা জিয়ার বিনিয়োগ করা সম্পদ দেখভাল করার ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন।

এ প্রসঙ্গে বিএনপিপন্থী রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও বুদ্ধিজীবী ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, মাঝে মাঝে মনে হয় জিয়া পরিবারের সদস্যরা হয়তো খালেদা জিয়ার মৃত্যুর অপেক্ষায় আছেন। তারেকের ধারণা, তার মা মারা গেলে তিনি হবেন দলের প্রধান। আর শর্মিলা চান সম্পত্তির ভাগ। এমন দোটানায় বিএনপির ভবিষ্যৎ যে ধ্বংসের দিকে এগোচ্ছে, তা নিয়েও তাদের বিন্দুমাত্র মাথাব্যথা নেই।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি