সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » other important » সুযোগ বুঝে তারেকের বিরুদ্ধে গুটি করছেন শর্মিলা রহমান



সুযোগ বুঝে তারেকের বিরুদ্ধে গুটি করছেন শর্মিলা রহমান


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
01.11.2021

নিউজ ডেস্ক: গুলশানের বাসা থেকে তৃতীয় বারের মতো হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ইতোমধ্যে বায়োপসি রিপোর্ট অনুযায়ী তার চিকিৎসা চলছে। বর্তমানে তার অবস্থা মোটামুটি ভালো। শারীরের তাপমাত্রাও স্বাভাবিক আছে। ডায়াবেটিসও প্রায় নিয়ন্ত্রণে। খালেদা জিয়ার চিকিৎসক দলের সদস্য ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন এ তথ্য জানালেও লন্ডন থেকে উড়ে এসেছেন প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি।

এ নিয়ে বিএনপির রাজনীতিতে শুরু হয়েছে জল্পনা। অনেকেই বলছেন, সুস্থ খালেদা জিয়াকে দেখভাল করার কোনো কারণ নেই। কিন্তু এরপরও শর্মিলা এসেছেন। এখানে খালেদা জিয়াকে দেখভাল করার আড়ালে অন্য কোনো উদ্দেশ্য লুকিয়ে থাকতে পারে। হয়তো তিনি চাচ্ছেন সম্পত্তির পূর্ণাঙ্গ ভাগ বুঝে নিতে। কিংবা তিনি চাচ্ছেন দলের মূল কাণ্ডারি হিসেবে আবির্ভূত হতে।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, বিএনপি বর্তমানে আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত। তবে শুধুমাত্র দলের অন্তঃকোন্দলের কারণেই সুবিধা করতে পারছি না আমরা। মির্জা ফখরুল তারেক রহমানের কথা মতো উঠবস করলেও তলে তলে শর্মিলাকে সমর্থন করছেন বলেই শুনেছি। অপরদিকে রুহুল কবির রিজভী খালেদাপন্থী রাজনীতি করছেন। বিএনপির এসব কর্মকাণ্ডের কারণে তৃণমূলের কর্মীরা বিভ্রান্ত। আর এ কারণেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলনে যেতে পারছে না দল। এদিকে খালেদা জিয়া সুস্থ থাকার পরও শর্মিলা তাকে দেখভাল করার জন্য এসেছেন। শুনেছি তিনি নাকি বিএনপির রাজনীতিতেও কলকাঠি নাড়তে চান। এখন সবাই যদি দলে মাতবর হন। তবে কর্মী হবেন কে? সেই নিয়েও দলের অভ্যন্তরে সৃষ্টি হয়েছে প্রশ্ন।

জানা যায়, আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি তারেক রহমানকে কোনো ক্রমেই সহ্য করতে পারছেন না। তিনি ভাবছেন, হয়তো তারেক রহমান তার ছোট ভাই কোকোর সম্পত্তি লুট করে শর্মিলা ও তার সন্তানদের পাওনা ন্যায্য সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করবেন। আর এ কারণে তিনি বেগম জিয়াকে নানা রকমের কানপড়া দিচ্ছেন। অনেকেই বলছেন, শর্মিলা খালেদা জিয়াকে ফুসলিয়ে ফাঁসলিয়ে বিএনপির প্রধান হয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন। এ ক্ষেত্রে শর্মিলার যুক্তি হচ্ছে, যেহেতু তারেক রহমান কোনো ক্রমেই দেশে আসতে পারবেন না। সেহেতু শর্মিলাকে বিএনপির দায়িত্ব বুঝিয়ে দিলে, বিএনপি রাজনীতির মাঠে ফের চাঙ্গা হয়ে উঠতে পারবে। অপরদিকে খালেদা জিয়া নাকি শর্মিলার কথায় সায় দিয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। খালেদা জিয়াও চান, তার অবর্তমানে বিএনপির প্রধান হিসেবে শর্মিলাকে নির্বাচিত করা হোক।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির নীতি নির্ধারণী ও দায়িত্বশীল নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, খালেদা জিয়া এখন মনে করেন তারেক রহমান তার উগ্র কার্যক্রমের জন্য দলের মাঠ পর্যায়ের নেতাদের কাছে বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন। তিনি মায়ের চেয়ে বেশি ভালোবাসেন ক্ষমতাকে। তাই বর্তমানে তারেকের যেকোনো কর্মসূচিতে সরাসরি বিরোধিতা করছেন মা খালেদা জিয়া।

দায়িত্বশীল নেতারা আরো বলেন, যেকোনো পরামর্শের জন্য সিনিয়র নেতাদের সরাসরি তার সঙ্গে যোগাযোগ করার কথাও বলেছেন খালেদা জিয়া। এছাড়া ডাক্তার জোবায়দা রহমান তেমন কোনো খোঁজখবর রাখেননি জেলে থাকা অবস্থায়। ফলে শর্মিলার প্রতি আলাদা ভালোবাসা জন্ম নিয়েছে বেগম জিয়ার। তাই জিয়া পরিবারের সম্মান রক্ষার্থে তাকে নিয়েই নতুন চিন্তাভাবনা খালেদার।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি