রবিবার ৫ ডিসেম্বর ২০২১
  • প্রচ্ছদ » Lead 3 » যাত্রীদের জিম্মি করে পরিবহন ধর্মঘট কতোটা যৌক্তিক



যাত্রীদের জিম্মি করে পরিবহন ধর্মঘট কতোটা যৌক্তিক


বাংলা নিউজ ব্যাংক :
07.11.2021

নিউজ ডেস্ক: জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর জেরে ডাকা পরিবহন ধর্মঘটের প্রভাব পড়েছে নিত্যপণ্যের বাজারেও। বিশেষ করে সবজির দাম বেড়েছে। সঙ্গে বিভিন্ন জেলায় বিপাকে পড়েছেন যাত্রীরা।

শনিবার (১১ নভেম্বর) সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন জেলায় যাত্রীবাহী বাস, পণ্যবাহী ট্রাকের চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীসহ সাধারণ ভোক্তারা। জানা গেছে, পণ্যবাহী গাড়িগুলো দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যেতে না পারায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তের বাজারে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। যে অঞ্চলে যে পণ্যের ঘাটতি দেখা যাচ্ছে, সেই অঞ্চলেই উক্ত পণ্যের দাম বেড়ে যাচ্ছে।

বাংলাদেশের চালের বড় বাজার কুষ্টিয়া, পাবনা এবং নওগাঁ। কিন্তু ধর্মঘটের কারণে বাংলাদেশের অন্যান্য কোন প্রান্তে চাল পাঠাতে পারছেন না ব্যবসায়ীরা। যার কারণে রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলায় চালের দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে ৫ থেকে ৭ টাকা।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ জানান, ধর্মঘট প্রত্যাহারের বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো প্রস্তাব সেভাবে আসেনি। রোববার মিটিং হবে এবং সে পর্যন্ত আমাদের ধর্মঘট চলবে।

যদিও এ ধর্মঘটকে অযৌক্তিক বলছে দেশচিন্তকগণ। তাদের মতে ২০১৩ সালে দেশে ডিজেলের মূল্য ছিল লিটার প্রতি ৬৮ টাকা, পরবর্তীতে ২০১৬ সালে লিটার প্রতি ৩ টাকা কমিয়ে ৬৫ টাকা করা হয়। এরপর গত সাড়ে পাঁচ বছরে দেশে ডিজেল ও কেরোসিনের মূল্যবৃদ্ধি হয়নি।

চলতি অর্থবছরের শুরু থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি অব্যাহত আছে। এর ফলে ডিজেলের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন-বিপিসি ব্যাপক লোকসানের সম্মুখীন হয়। যার কারণেই দাম বৃদ্ধি হয়েছে। বিষয়টি নিতান্তই আন্দোলন করার মতো ঘটনা নয়।

এদিকে আন্দোলনের কারণে ভোগান্তিতে পড়া যাত্রীরা বলেন, যাত্রীদের জিম্মি করে এভাবে অঘোষিতভাবে কর্মবিরতি পালন করা উচিত নয়। আগে থেকে ঘোষণা দিলে তারা বিকল্প ব্যবস্থা করতে পারতেন। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তাদের।

উল্লেখ্য, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার সকাল থেকে সারা দেশে বাস-ট্রাক চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে পরিবহন মালিকরা। ফলে রাজধানীসহ সারা দেশেই সাধারণ মানুষকে পড়তে হয়েছে চরম ভোগান্তিতে। আর জ্বালানি তেলের বর্ধিত দাম প্রত্যাহারের দাবি আদায় না হলে চলমান ধর্মঘট অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মালিক সমিতি।



এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি